,


মোটোরোলা মোটো জি হান্ড্রেড ফোনের দাম ও স্পেসিফিকেশন - Motorola Moto G100

মোটোরোলা মোটো জি হান্ড্রেড ফোনের দাম ও স্পেসিফিকেশন – Motorola Moto G100

বিশ্বস্ত স্মার্টফোন ব্র্যান্ড মোটরোলা মোটো জি সিরিজের নতুন স্মার্টফোন ‘মোটোরোলা মোটো জি হান্ড্রেড’ বাংলাদেশের বাজারে নিয়ে এসেছে। ৮ জিবি র‍্যাম ও ১২৮ জিবি রোমের ফোনটি বাংলাদেশের বাজারে পাওয়া যাবে।

প্রসেসর

সকল ফিচারের সুন্দরভাবে চালাতে একটি শক্তিশালী প্রসেসর অপরিহার্য। দারুণ পারফরম্যান্স নিশ্চিত করতে স্মার্টফোনটিতে চিপসেট হিসাবে ব্যবহার করা হয়েছে স্ন্যাপড্রাগন® ৮৭০ ফাইভ জি™ অক্টাকোর প্রসেসর, যা ব্যবহারকারীর চাহিদা অনুযায়ী কর্মক্ষমতা প্রদান করবে।

অপারেটিং সিস্টেম

মোটোরোলা মোটো জি হান্ড্রেড স্মার্টফোনে ব্যবহার করা হয়েছে অ্যান্ড্রয়েড ১১।

ডিসপ্লে

মোটোরোলা মোটো জি ১০০ ফোনে আছে ৬.৭ ইঞ্চির আইপিএস এলসিডি ডিসপ্লে। যার স্ক্রীন বডি রেশিও ৮৪.১ শতাংশ ও ৪০৯ পি পি আই ডেনসিটি।

ক্যামেরা

ফোনটিতে কোয়াড রিয়ার ক্যামেরা রয়েছে। এতে একটি ৬৪ মেগাপিক্সেলের ওয়াইড ক্যামেরা, একটি ১৬ মেগাপিক্সেলের আলট্রা ওয়াইড ক্যামেরা, একটি ২ মেগাপিক্সেলের ডেপথ ক্যামেরা ও একটি টিওএফ থ্রীডি ক্যামেরা রয়েছে। এতে ডুয়াল-এলইডি ফ্ল্যাশ, রিং ফ্ল্যাশ (ম্যাক্রো মোড), প্যানোরামা, এইচডিআরসহ বিভিন্ন ফিচার রয়েছে।

ফোনে ১৬ মেগাপিক্সেলের একটি ওয়াইড ও ৮ মেগাপিক্সেলের একটি আলট্রা ওয়াইড সেলফি ক্যামেরা রয়েছে। সেলফি ক্যামেরাটিতে এইচডিআর ফিচার রয়েছে। এছাড়া স্মার্টফোনে সর্বোচ্চ সিক্সকে রেজুলেশনের ভিডিও ধারণ ক্ষমতা রয়েছে।

স্টোরেজ

ফোনটিতে ৮ গিগাবাইট র‍্যাম অপ্টিমাইজেশন দিবে চমৎকার স্মুথ ও দীর্ঘ বিনোদন বা গেমিং সেশন এবং ১২৮ গিগাবাইটের স্টোরেজে জায়গা ফুরিয়ে যাওয়া নিয়েও ভাবতে হবে না।

ব্যাটারি

‘মোটোরোলা মোটো জি হান্ড্রেড’ তে লিপো ৫০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের ব্যাটারি রয়েছে, যাতে ২০ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট করে।

অন্যান্য

স্মার্টফোনটি ইরিডিসেন্ট স্কাই, ইরিডিসেন্ট ওশান, স্লেট গ্রে এই তিন রঙে পাওয়া যাচ্ছে। এছাড়া ফিঙ্গারপ্রিন্ট (সাইড মাউন্ট), অ্যাক্সিলোমিটার, গাইরো, প্রক্সিমিটি, কম্পাস সুবিধা রয়েছে।

মোটোরোলা মোটো জি হান্ড্রেড (Motorola Moto G100) ফোনের দাম ও স্পেসিফিকেশন জেনে নিনঃ

ব্যান্ড মোটরোলা
সিরিজ মোটরোলা মোটো জি
মডেল মোটোরোলা মোটো জি হান্ড্রেড
ডিসপ্লের ধরণ আইপিএস এলসিডি ডিসপ্লে
ডিসপ্লের সাইজ ৬.৭ ইঞ্চি
পিছনের ক্যামেরা চারটি ক্যামেরা; একটি ৬৪ মেগাপিক্সেলের ওয়াইড ক্যামেরা+একটি ১৬ মেগাপিক্সেলের আলট্রা ওয়াইড ক্যামেরা+একটি ২ মেগাপিক্সেলের ডেপথ ক্যামেরা+একটি টিওএফ থ্রীডি ক্যামেরা
সামনের ক্যামেরা দুইটি ক্যামেরা; একটি ১৬ মেগাপিক্সেলের ওয়াইড ক্যামেরা+একটি ৮ মেগাপিক্সেলের আলট্রা ওয়াইড ক্যামেরা
প্রসেসর কোয়ালকম এসএম ৮২৫০-এসি স্ন্যাপড্রাগন ৮৭০ ফাইভ জি (৭ এনএম) চিপসেট, অক্টা-কোর (১x৩.২ গিগাহার্টজ ক্রিয়ো ৫৮৫ এবং ৩x২.৪২ গিগাহার্টজ ক্রায়ো ৫৮৫ এবং ৪x১.৮০ গিগাহার্টজ ক্রিয়ো ৫৮৫) সিপিইউ, অ্যাড্রেনো ৬৫০ জিপিইউ
র‌্যাম ৮ গিগাবাইট
ইন্টারনাল স্টোরেজ (রোম) ১২৮ গিগাবাইট
ব্যাটারি লি-পো ৫ হাজার মিলিঅ্যাম্পিয়ার
কালার ইরিডিসেন্ট স্কাই, ইরিডিসেন্ট ওশান, স্লেট গ্রে
মূল্য আনুমানিক ৪৯ হাজার ৯৯০ টাকা

আরও পড়ুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: