চায়না বাঁধ ভ্রমণ গাইড

চায়না-বাধ-সিরাজগঞ্জ
চায়না বাধ সিরাজগঞ্জ

আমাদের আজকের প্রতিবেদনটি চায়না বাঁধ কে ঘিরে। চায়না বাঁধ কোথায় অবস্থিত, চায়না বাঁধ এর ইতিহাস, কেন যাবেন চায়না বাঁধে, কিভাবে যাবেন, কোথায় থাকবেন এ নিয়ে আমাদের প্রতিবেদন টি সাজানো হয়েছে। আশা করি, আমাদের মূল্যবান প্রতিবেদনটি পড়ে আপনারা উপকৃত হবেন।

চায়না বাঁধে কোথায়?

বিভাগ জেলা উপজেলা ইউনিয়ন
রাজশাহী সিরাজগঞ্জ সিরাজগঞ্জ সদর

চায়না বাঁধ সম্পর্কে কতটুকু জানেন?

ছবিটি দেখে নিশ্চয়ই চক্ষু ছানাবড়া অবস্থা আপনার? ভাবছেন এমন জায়গা নিশ্চয়ই দেশের বাইরে কোথাও! ছবিটি আমাদের দেশেরই, সিরাজগঞ্জে। জায়গাটার নাম চায়না বাঁধ।
ভাবুন তো, সবুজ ঘাসের উপর বসে আছেন আপনি, আর দুইপাশে নদী। এমন অসাধারণ জায়গায় একটা বিকেল পার করতে চাইলে ঘুরে আসতে পারেন সিরাজগঞ্জের চায়না বাঁধ থেকে। বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড জেলা শহর থেকে ২ কিলোমিটার দূরে যমুনা নদীর কূল ঘিরে তৈরি করা হয়েছে এই বাঁধ। বাঁধের মূল ফটক থেকে নদীর ২ কিলোমিটার গভীরে চলে গেছে বাঁধের শেষ প্রান্ত। মূল গেট থেকে পিচ ঢালা রাস্তা সহজেই যেতে পারবেন বাঁধের শেষ প্রান্তে।

যমুনা নদীর এই বাঁধে প্রতিদিন অসংখ্য মানুষ বেড়াতে আসে। ধীরে ধীরে এটি পরিণত হচ্ছে পর্যটকদের পছন্দের গন্তব্যে। বাঁধে বসে থাকতে ভালো লাগবে, ভালো লাগবে আশেপাশের পরিবেশ উপভোগ করতে। আর নদীতে নৌকা ভ্রমণের অভিজ্ঞতা তো এক কথায় অসাধারণ! এরপর আপনি চাইলে শহরটা ঘুরে দেখতে পারেন। ছোট শহর। ব্যাটারি চালিত রিকশায় ১ ঘন্টাতেই শেষ করতে পারবেন।

চায়না বাঁধ বিলে কেন যাবেন

ভ্রমন পিপাসু মানুষ দের কে যদি এই কথা জিজ্ঞাসা করা হয়, তবে তারা এই কথা অহেতু হাসির ছলে উড়িয়ে দিবে । কারন, ভ্রমন পিপাসু মানুষদের কাছে এই কথা মূল্যহীন । তবুও বলি,

  • চায়না বাঁধ একটি দর্শনীয় স্থান ।
  • চায়না বাঁধ অত্যন্ত মনোরম, যা আপনার মনকে প্রফুল্ল করে তুলবে ।

চায়না বাঁধে ভ্রমন করলে আপনি হতাশ হবেন না । এটি আমরা হরফ করে আপনাদের জানান দিয়ে দিতে পারি ।

কিভাবে চায়না বাধে যাবেন ?

যে কোন স্থান হতে বাস যোগে, ট্রেন যোগে ও বিমানের মাধ্যমে রাজশাহী যেতে পারেন। তারপর সিরাজগঞ্জ হতে গাজনার বিলে যাওয়ার উপায় নিচে উল্লেখ করা হলোঃ

সিরাজগঞ্জ বাস টার্মিনাল থেকে চায়না বাঁধ

সিরাজগঞ্জ জেলা বাস স্ট্যান্ড থেকে বাস, মাইক্রোবাস, সিএনজি, ইজিবাইক/ অটোরিক্সা  যোগে চায়না বাঁধে যাওয়া যায়। গাড়ি থেকে নেমেই রাস্তার পাশে চাটমোহর শাহী মসজিদ দেখা যায়।

চায়না বাধে থাকবেন কোথায়?

দেশের নানা প্রান্ত থেকে চায়না বাধে ভ্রমনে ভ্রমনযাত্রী আসতে পারে, যাদের একদিনের মধ্যে ভ্রমন করে আবার বাড়ি ফিরে যাওয়া সম্ভবপর হয়ে ওঠেনা । তাই আপনার ভ্রমনে চিন্তা কোনো প্রকার না আসে সে জন্য ক্ষুদ্র প্রয়াসে সিরাজগঞ্জ সদরের আশে পাশের কিছু হোটের নাম তুলে ধরছি । যেখানে, আপনি সেফলি থাকতে পারবেন । ম্যাপে পাবনাসদরের আশে পাশের কিছু হোটেলের নাম ও তাদের খরচ সম্পর্কে দেওয়া হলো,

চায়না বাধে কে নিয়ে আমাদের প্রতিবেদনটি আশা করি আপনাদের ভালও লেগেছে । আমাদের প্রতিবেদনটি আপনাদের কেমন লাগলো তা আমাদের কমেন্টে জানাতে ভুলবেন না । পরিশেষে, ধন্যবাদ আমাদের প্রতিবেদনটি পড়ার জন্য ।