ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে চট্টগ্রাম ট্রেনের সময়সূচী ও টিকিটের মূল্য

প্রতিবেদনটি ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে চট্টগ্রাম ট্রেনের সময়সূচী ও টিকিটের মূল্য সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য নিয়ে সাজানো। আপনি যদি ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে চট্টগ্রাম ট্রেনে ভ্রমণ করতে চান তবে এই প্রতিবেদনটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন।

Table of Contents

ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে চট্টগ্রাম রুট সম্পর্কে

ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে চট্টগ্রাম পথের দূরত্ব প্রায় ২১২ কিলোমিটার। এই রুটে আন্তঃনগর ট্রেন নিয়মিত যাতায়াত করে। ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে চট্টগ্রাম ট্রেনে যেতে প্রায় ৫ ঘন্টা ২০ মিনিট সময় লাগে।

ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে চট্টগ্রাম কেন ভ্রমন করবেন?

ট্রেনে ভ্রমণ ব্যয় অন্য পরিবহণের ভ্রমণ ব্যয়ের তুলনায় সস্তা। ফলে সকল শ্রেণীর মানুষ অনায়াসে ট্রেনে ভ্রমণ করতে পারেন। অপরদিকে দীর্ঘ পথ অতিক্রম করার জন্য ট্রেনে অনেক ধরণের সুবিধা থাকে। যা অন্য কোন পরিবহণে থাকে না। বাংলাদেশের যানজট এড়িয়ে চলতে, অনেকের কাছে স্থল পথে যাত্রার জন্য সেরা পরিবহণ ট্রেন। তাই বলা যায়, ২১২ কিমি দীর্ঘ ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে চট্টগ্রাম রুটে ট্রেন ভ্রমণই সেরা। প্রতিদিন হাজার হাজার ভ্রমণকারী ট্রেনে করে ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে চট্টগ্রাম যাতায়াত করে থাকেন ।

ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে চট্টগ্রাম ট্রেনের নতুন সময়সূচী

ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে চট্টগ্রাম আন্তঃনগর, মেইল/এক্সপ্রেস ও কমিউটারসহ মোট ০৭ টি ট্রেন নিয়মিত যাতায়াত করে। নিচে ট্রেনসমূহের সময়সূচী উল্লেখ করা হলোঃ

ট্রেনের ধরন ট্রেনের নাম  ট্রেন নাম্বার  থেকে প্রস্থানের সময়  পর্যন্ত  আগমন সময় বন্ধ
আন্তঃনগর ট্রেন মোহননগর প্রভাতী ৭০৪ ব্রাহ্মণবাড়ীয়া ০৯;৪৪ চট্টগ্রাম  ১৪:০০ নাই
আন্তঃনগর ট্রেন মোহনগর এক্সপ্রেস ৭৪১ ব্রাহ্মণবাড়ীয়া ২৩;৩৭ চট্টগ্রাম ০৪;৫০ রবিবার
আন্তঃনগর ট্রেন তূর্ণা ৭৪২ ব্রাহ্মণবাড়ীয়া ০১;৪৪ চট্টগ্রাম ০৬;২০ নাই
কমিউটার ট্রেন চিটাগাং মেইল ব্রাহ্মণবাড়ীয়া ০১;২৯ চট্টগ্রাম ০৭:২৫ নাই
কমিউটার ট্রেন কর্ণফুলী এক্সপ্রেস ৬৭ ব্রাহ্মণবাড়ীয়া ১২:১৪ চট্টগ্রাম ১৮:১৫ নাই
কমিউটার ট্রেন ময়মনসিংহ এক্সপ্রেস ৩৮  ব্রাহ্মণবাড়ীয়া ১৩;৩৮ চট্টগ্রাম ২১;১০ নাই
কমিউটার ট্রেন চট্টলা এক্সপ্রেস ৩৫  ব্রাহ্মণবাড়ীয়া ১৫:২২ চট্টগ্রাম ২০:৩০ মঙ্গলবার

ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে চট্টগ্রাম ট্রেনের তালিকা

এই রুটে নিচে উল্লেখিত ট্রেনগুলি চলাচল করে। আপনাদের ভ্রমণের সুবিধার্থে ট্রেনগুলি সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করা হয়েছে।

মোহননগর প্রভাতী

মোহননগর প্রভাতী একটি আন্তঃনগর ট্রেন। আন্তঃনগর ট্রেনগুলি মেইল/এক্সপ্রেস/কমিউটার ট্রেন অপেক্ষা দ্রুতগামী। ট্রেনের ভ্রমণ খরচ অনেক কম।মোহননগর প্রভাতী ট্রেনের নাম্বার হলো ৭০৩। মোহননগর প্রভাতী সপ্তাহে সাতদিন নিয়মিত ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে চট্টগ্রাম যাতায়াত করে। এই ট্রেনের সাপ্তাহিক ছুটি নেই।

মোহনগর এক্সপ্রেস

মোহনগর এক্সপ্রেস একটি আন্তঃনগর ট্রেন। আন্তঃনগর ট্রেনগুলি মেইল/এক্সপ্রেস/কমিউটার ট্রেন অপেক্ষা দ্রুতগামী। ট্রেনের ভ্রমণ খরচ অনেক কম।মোহনগর এক্সপ্রেস ট্রেনের নাম্বার হলো ৭২১।মোহনগর এক্সপ্রেস সপ্তাহে ছয়দিন নিয়মিত ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে চট্টগ্রাম যাতায়াত করে। এই ট্রেনের প্রতি রবিবার সাপ্তাহিক ছুটি।

তূর্ণা

তূর্ণা একটি আন্তঃনগর ট্রেন। আন্তঃনগর ট্রেনগুলি মেইল/এক্সপ্রেস/কমিউটার ট্রেন অপেক্ষা দ্রুতগামী। ট্রেনের ভ্রমণ খরচ অনেক কম।তূর্ণা ট্রেনের নাম্বার হলো ৭৪২। তূর্ণা সপ্তাহে সাতদিন নিয়মিত ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে চট্টগ্রাম যাতায়াত করে। এই ট্রেনের সাপ্তাহিক ছুটি নেই।

চিটাগাং মেইল

চিটাগাং মেইল একটি কমিউটার ট্রেন। মেইল/এক্সপ্রেস/কমিউটার ট্রেনগুলি আন্তঃনগর ট্রেন অপেক্ষা ধীরগতিসম্পন্ন হয়ে থাকে, এরা প্রায় সকল স্টেশনে থামিয়ে যাত্রী উঠা-নামা করে। ট্রেনের ভ্রমণ খরচ অনেক কম। চিটাগাং মেইল ট্রেনের নাম্বার হলো ২। চিটাগাং মেইল সপ্তাহে সাতদিন নিয়মিত ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে চট্টগ্রাম যাতায়াত করে। এই ট্রেনের এই ট্রেনের সাপ্তাহিক ছুটি নেই।

কর্ণফুলী এক্সপ্রেস

কর্ণফুলী এক্সপ্রেস একটি কমিউটার ট্রেন। মেইল/এক্সপ্রেস/কমিউটার ট্রেনগুলি আন্তঃনগর ট্রেন অপেক্ষা ধীরগতিসম্পন্ন হয়ে থাকে, এরা প্রায় সকল স্টেশনে থামিয়ে যাত্রী উঠা-নামা করে। ট্রেনের ভ্রমণ খরচ অনেক কম। কর্ণফুলী এক্সপ্রেস ট্রেনের নাম্বার হলো ৪। কর্ণফুলী এক্সপ্রেস সপ্তাহে সাতদিন নিয়মিত ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে চট্টগ্রাম যাতায়াত করে। এই ট্রেনের এই ট্রেনের সাপ্তাহিক ছুটি নেই।

চট্টলা এক্সপ্রেস

চট্টলা এক্সপ্রেস একটি কমিউটার ট্রেন। মেইল/এক্সপ্রেস/কমিউটার ট্রেনগুলি আন্তঃনগর ট্রেন অপেক্ষা ধীরগতিসম্পন্ন হয়ে থাকে, এরা প্রায় সকল স্টেশনে থামিয়ে যাত্রী উঠা-নামা করে। ট্রেনের ভ্রমণ খরচ অনেক কম।চট্টলা এক্সপ্রেসট্রেনের নাম্বার হলো ৬৭। চট্টলা এক্সপ্রেস সপ্তাহে ছয়দিন নিয়মিত ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে চট্টগ্রাম যাতায়াত করে। এই ট্রেনের এই ট্রেনের সাপ্তাহিক মঙ্গলবার ছুটি।

ময়মনসিংহ এক্সপ্রেস

ময়মনসিংহ এক্সপ্রেস একটি কমিউটার ট্রেন। মেইল/এক্সপ্রেস/কমিউটার ট্রেনগুলি আন্তঃনগর ট্রেন অপেক্ষা ধীরগতিসম্পন্ন হয়ে থাকে, এরা প্রায় সকল স্টেশনে থামিয়ে যাত্রী উঠা-নামা করে। ট্রেনের ভ্রমণ খরচ অনেক কম। ময়মনসিংহ এক্সপ্রেস ট্রেনের নাম্বার হলো ৩৮। ময়মনসিংহ এক্সপ্রেস সপ্তাহে সাতদিন নিয়মিত ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে চট্টগ্রামযাতায়াত করে। এই ট্রেনের এই ট্রেনের সাপ্তাহিক ছুটি নেই।

উপরে উল্লেখিত ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে চট্টগ্রাম ট্রেনের সময়সূচী ও ট্রেন সম্পর্কে জেনে নিরাপদ ও ঝামেলাবিহীন যাত্রা উপভোগ করতে পারেন।

ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে চট্টগ্রাম ট্রেনের টিকিটের মূল্য

ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে চট্টগ্রাম যাতায়াতকারী ইন্টারসিটি/মেইল/এক্সপ্রেস/কমিউটার ট্রেনের টিকিটের সর্বনিম্ন মূল্য ২৩০ টাকা। নিচের চার্ট থেকে ট্রেনের টিকিটের মূল্য জেনে নিন। এবার সহজে ষ্টেশন থেকে অথবা অনলাইনে টিকিট ক্রয় করুন। একইসাথে কিভাবে অনলাইনে ট্রেনের টিকিট ক্রয় করতে হয় সেই সম্পর্কে জানতে প্রতিবেদনটি শেষ পর্যন্ত পড়ুন।

সিটের ধরন টিকিট মূল্য (প্রাপ্ত বয়স্ক)
শোভন – টাকা
শোভন চেয়ার ২৩০  টাকা
স্নিগ্ধা ৩৮৫  টাকা
ফাস্ট বার্থ ৪৬০  টাকা
এসি সিট ৪৬০   টাকা

বিভিন্ন ট্রেনের একই সিটের ভাড়া আলাদা, তাই একই সিটের সর্বনিম্ন ও সর্বোচ্চ ভাড়া উল্লেখ করা হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে চট্টগ্রাম ট্রেনের টিকিট ক্রয়

ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে চট্টগ্রাম যাত্রীগণ অনলাইনের মাধমে ট্রেনের টিকিট ক্রয় করতে পারেন। আবার ব্রাহ্মণবাড়ীয়া ষ্টেশনে গিয়ে সেখান থেকে সরাসরি টিকিট ক্রয় করতে পারবেন। নিচে ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে চট্টগ্রাম ট্রেনের টিকিট ক্রয়ের পদ্ধতি দুটি আলোচনা করা হলো।

ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে চট্টগ্রাম অনলাইন টিকিট বুকিং

ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে চট্টগ্রাম ট্রেনের অনলাইন টিকিট বুকিং করার জন্য আপনাকে বাংলাদেশ রেলওয়ে এর ওয়েব সাইটি ভিজিট করতে হবে ।

ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে চট্টগ্রাম ট্রেনের অনলাইন টিকিট কেনা সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য 

  • যাত্রী (আপনি) যাত্রার ১০ দিন আগে টিকিট কিনতে পারবেন ।
  • ক্রেডিট এবং ডেবিট কার্ড, ডিবিবিএল মোবাইল ব্যাংকিং, বিকাশ এর মাধ্যমে পেমেন্ট করতে পারবেন।
  • বাংলাদেশ ট্রেনের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটটি eticket.railway.gov.bd
  • ই-টিকিট প্রিন্টের তথ্য দেখিয়ে যে কোনও সময় ট্রেনের টিকিট সংগ্রহ করতে পারবেন ।
  • ভ্রমণের কমপক্ষে ৩০ মিনিট আগে টিকিট সংগ্রহ করার পরামর্শ আপনাদের জন্য ।
  • আপনি অনলাইন সিট নিজের মত করে পছন্দ করতে পারবেন।

ব্রাহ্মণবাড়ীয়া ট্রেন স্টেশন থেকে টিকিট ক্রয়

  • টিকিট ক্রয় করার ১/২ দিন পূর্বে অথবা সর্বোচ্চ ১০ দিন পূর্বে ব্রাহ্মণবাড়ীয়া ট্রেন স্টেশন থেকে টিকিট ক্রয় করতে পারবেন।
  • টিকিট ক্রয় করার জন্য স্টেশনের টিকিট কাউন্টার থেকে টিকিট সংগ্রহ করতে হবে ।
  • সাবধানতার সাথে টিকিটটি রাখতে হবে।

ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে ছেড়ে যাওয়া অন্যান্য ট্রেনের সময়সূচি জেনে নিতে পারেন;

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *