,


নলডাঙ্গায় কৃষি বিভাগের জায়গা দখল করে ছাত্রলীগ নেতার দোকান ঘর নির্মাণ

নলডাঙ্গায় কৃষি বিভাগের জায়গা দখল করে ছাত্রলীগ নেতার দোকান ঘর নির্মাণ

নলডাঙ্গা (নাটোর) সংবাদদাতাঃ নাটোরের নলডাঙ্গা উপজেলায় কৃষি বিভাগের জায়গা দখল করে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের এক নেতার বিরুদ্ধে দোকান ঘর নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে।

উপজেলার খাজুরা বাজারের প্রবেশ মুখে কৃষি বিভাগের পরিত্যক্ত গোডাউনের জায়গা দখল করে শনিবার থেকে খাজুরা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক মিনাজুল আবেদিন মিঠুন টিনের বেড়া ও টিনের চালা দিয়ে দোকান ঘর নির্মাণ করছে।

স্থানীয় কৃষি বিভাগের নিষেধ অমান্য করে এ দখল কাজ করছে বলে জানা গেছে।তবে ছাত্রলীগের নেতা মিনাজুল আবেদিন মিঠুনের দাবী স্থানীয় চেয়ারম্যান ও নাটোর ২ আসনের সাংসদের অনুমতি নিয়ে সেখানে আমি দোকান ঘর নির্মাণ করছি।

জানা যায়,উপজেলার খাজুরা ইউনিয়নের খাজুরা বাজারের প্রবেশ মুখে খাজুরা মৌজায় ৩ নং খতিয়ানের ৩০৫৪ দাগে মোট ৮ শতক জমির উপর অনেক আগের কৃষি বিভাগের একটি গোডাউন ঘর ছিল।বর্তমানে গোডাউন ঘরটি ব্যবহারের অনুপযোগী হওয়ায় তা পরিত্যাক্ত অবস্থায় পড়ে ছিল।এ সুযোগে ওই জায়গা দখল করে বিভিন্ন স্থাপনা তৈরি করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলে স্থানীয় প্রভাবশালীরা।

পরে বিগত তত্বাবধায়ক সরকারের সময় কৃষি বিভাগের নামে থাকা জায়গায় অবৈধভাবে গড়ে উঠা স্থাপনাগুলো উচ্ছেদ করে প্রশাসন।পরে ওই কৃষি বিভাগের জায়গা আবারও দখল করে স্থাপনা তৈরির কাজ শুরু করে স্থানীয় প্রভাবশালীরা।এর অংশ হিসেবে গত শনিবার থেকে টিনের বেড়া টিনের চালা দিয়ে খাজুরা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক মিনাজুল আবেদিন মিঠুন ও তার তিন ভাই মকসেদ,মতিন ও মকলেজ কৃষি বিভাগের নিষেধ অমান্য করে ক্ষমতার দাপদ দেখিয়ে দখল কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।

খাজুরা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক মিনাজুল আবেদিন মিঠুন জানান,আমি খাজুরা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান ও নাটোর ২ আসনের সাংসদের অনুমতি নিয়ে দোকান ঘর নির্মাণ করছি।

খাজুরা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান অনুমতি দেয়ার কথা অস্বীকার করে জানান,কৃষি বিভাগের জায়গায় দখল করে দোকান ঘর নির্মাণের অনুমতি দেওয়ার প্রশ্নই উঠে না।

তবে নলডাঙ্গা উপজেলা কৃষি অফিসার আমাদের ইউনিয়ন পরিষদে এসে জায়গাটি দখল বন্ধের সহযোগিতা চেয়েছিল আমি বলেছি আপনারা উচ্ছেদের উদ্দ্যেগ নেন আমি সহযোগিতা করবো।

এব্যাপারে নাটোর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ রফিকুল ইসলাম জানান,খাজুরার ওই জায়গাটি কৃষি বিভাগের আমরা সেই জায়গাটি দখলমুক্ত করতে সব ধরনের উদ্দ্যেগ গ্রহন করা হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: