এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল ২০২০ এসএমএস এর মাধ্যমে ঈদের পরে পাওয়া যাবে

করোনাভাইরাসের কারণে অনিশ্চয়তার মুখে পড়া এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল (২০২০) প্রকাশের প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন করেছে শিক্ষা বোর্ডগুলো। তবে ঈদের আগে ফল প্রকাশ করা হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মাহবুব হোসেন।

বাংলাদেশের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো, এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল পরীক্ষার্থীদের বা তাদের অভিভাবকদের মোবাইল ফোনে এসএমএসের মাধ্যমে পৌঁছাবে।

এ বিষয়ে শিক্ষা বোর্ডগুলি এসএমএসের মাধ্যমে প্রার্থীদের প্রাক-নিবন্ধন শুরু করেছে এবং ঈদ-উল-ফিতরের পরে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের সম্ভাবনা রয়েছে বলে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মাহবুব হোসেন মঙ্গলবার  সন্ধ্যায় জানিয়েছেন।

কর্তৃপক্ষগুলি করোনভাইরাস মহামারীটির পটভূমির বিরুদ্ধে এই উদ্যোগ নিয়েছিল।

ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের সিনিয়র সিস্টেম বিশ্লেষক মনজুরুল কবির বলেন, এটিই প্রথমবারের মতো আমরা প্রার্থীদের প্রাক-নিবন্ধন করছি এবং তাদের ফলাফল তাদের মোবাইল ফোনে প্রেরণ করব।

তিনি বলেন, “আমরা সমস্ত সেল ফোন সরবরাহকারীদের কাছে বার্তা প্রেরণ শুরু করেছি এবং আশা করি, সমস্ত প্রার্থী বা তাদের পিতামাতারা তাদের ফলাফলের জন্য নিবন্ধন করবেন।”

এসএসসি এবং সমমানের ফলাফল সম্পর্কে জানতে, প্রাক-নিবন্ধকরণ ফলাফল প্রকাশের ২৪ ঘন্টা আগে অবধি চলবে। প্রাক নিবন্ধনের জন্য যেকোনো মোবাইল অপারেটরের নম্বর থেকে SSC Board Name (প্রথম তিন অক্ষর) Roll Year লিখে ১৬২২২ নম্বরে পাঠাতে হবে। প্রতি এসএমএসের জন্য দুই টাকা চার্জ নেওয়া হবে।

মনজুরুল কবির বলেছেন, বিগত বছরগুলির মতো ফলাফলও বোর্ডের ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে।

পরীক্ষার্থীরা শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইট http://www.educationboardresults.gov.bd/ থেকে এবং সংশ্লিষ্ট শিক্ষাবোর্ডের ওয়েবসাইটগুলি থেকে ফলাফল পেতে পারেন।

ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক জিয়াউল হক বলেছেন, ফলাফল প্রকাশের জন্য তাদের সব ধরণের প্রস্তুতি রয়েছে।

আন্তঃ বোর্ড সমন্বয় কমিটির প্রধান জিয়াউলও বলেছেন, যে এ বছর শিক্ষার্থীরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে তাদের ফলাফল সংগ্রহ করতে পারবে না।

সরকার ১৭ই মার্চ থেকে ৩১শে মার্চ পর্যন্ত সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দিয়েছিল। পরে এই শাটডাউনটি ৩০ শে মে পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছিল।

স্বাভাবিক সময় থাকলে এ মাসের ৭ বা ৮ মে ফলাফল প্রকাশের পরিকল্পনা করেছিল, কিন্তু করোনার কারণে স্কুল বন্ধ থাকার কারণে এটি অশ্চিয়তার মুখে পড়ে।

গত আট বছরে প্রথমবারের মতো, সরকার কোনও পাবলিক পরীক্ষা শেষ করার ৬০ দিনের মধ্যে ফলাফল প্রকাশ করতে পারবে না। কিছুদিন আগে শিক্ষা বোর্ডগুলোর পক্ষ থেকে বলা হয়, চলতি মাসের মধ্যেই ফল প্রকাশ করা হবে। সেই লক্ষ্যেই প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

তবে, করোনাভাইরাসের কারণে অনিশ্চয়তার মুখে পড়া এসএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশের প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন করেছে শিক্ষা বোর্ডগুলো।

সরকারের অনুমতি মিললে যেকোনো দিন ও সময় ফল প্রকাশ করা হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান মু. জিয়াউল হক।

উল্লেখ্য, এই বছর এসএসসি পরীক্ষা ৩ ফেব্রুয়ারি শুরু হয়েছিল, তাত্ত্বিক এবং ব্যবহারিক পরীক্ষা যথাক্রমে ২৭ ফেব্রুয়ারি এবং ৬ মার্চ শেষ হয়েছিল।

প্রায় ২০,৪৭,৭৭৯ জন শিক্ষার্থী ৩,৫১২ কেন্দ্রে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল। গত ফেব্রুয়ারিতে এসএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছিল। অন্যদিকে গত ১ এপ্রিল এইচএসসি পরীক্ষা শুরুর কথা ছিল। এবারের এইচএসসি পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থী ১৩ লাখের বেশি।

আরো পড়ুনঃ 

প্রি-রেজিস্ট্রেশন করে রাখলে এসএমএসে পাওয়া যাবে এসএসসির রেজাল্ট

ডেস্ক রিপোর্টার
একটি বাংলাদেশ - Ekti Bangladesh (ektibd.com) is a leading Online Newspaper & News Portal of Bangladesh. It covers Breaking News, Politics, National, International, Live Sports etc.