,


অক্টোবরের শেষ দিকে বাজারে পাওয়া যাবে আইফোন ১২

অক্টোবরের শেষ দিকে বাজারে পাওয়া যাবে আইফোন ১২

কোভিড-১৯ পরিস্থিতি বিশ্বের অনেক কিছু বদলে দিয়েছে। অ্যাপলের নতুন আইফোন প্রতিবছর যে সময় ঘোষণা দেওয়া হয়, এবার তা আর হচ্ছে না। অ্যাপলের পক্ষ থেকে এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করা হয়েছে। গুঞ্জন উঠেছে, সেপ্টেম্বরের বদলে এবার এক মাস পিছিয়ে নতুন আইফোনের ঘোষণা দেবে মার্কিন প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠানটি। সেই তারিখ হতে পারে ১২ অক্টোবর। অর্থাৎ, ১২ অক্টোবরে আসতে পারে আইফোন ১২।

এনডিটিভি অনলাইনের প্রতিবেদনে জানানো হয়, এ বছর সেপ্টেম্বরে আইফোনের বদলে আইপ্যাড ও নতুন অ্যাপল ওয়াচ আনবে প্রতিষ্ঠানটি। ৭ সেপ্টেম্বরে বিশেষ ভার্চ্যুয়াল অনুষ্ঠানে এ ডিভাইসগুলোর ঘোষণা আসতে পারে। এ নিয়ে প্রযুক্তিবিষয়ক বিভিন্ন ওয়েবসাইটে গুঞ্জন রয়েছে। বলা হচ্ছে, সেপ্টেম্বরে আইফোন ঘোষণার কোনো অনুষ্ঠান হবে না। অক্টোবরের শেষ দিকে বাজারে পাওয়া যাবে আইফোন ১২।

বার্তা সংস্থা সিএনএনের প্রতিবেদন অনুযায়ী, নতুন আইফোনে ক্রেতাদের আকর্ষণ করার মতো বেশ কিছু ফিচার থাকছে। সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য ফিচার হচ্ছে ফাইভ–জি নেটওয়ার্ক সমর্থন। এ কারণে অনেকেই নতুন আইফোন হালনাগাদ করবেন।

বাজার বিশ্লেষকেরা বলছেন, নতুন আইফোনের সবচেয়ে বড় চমক থাকবে ক্যামেরায়। অ্যাপলের আইফোন ১২ সিরিজে উচ্চমানসম্পন্ন সেমকো ও সানি অপটিক্যাল লেন্স ব্যবহার করা হচ্ছে। আর ও তথ্য প্রকাশ করেছেন অ্যাপল পণ্য সম্পর্কে সফল পূর্বাভাস দেওয়ার জন্য বিখ্যাত হয়ে ওঠা বিশ্লেষক মিং-সি কুয়ো। তিনি বলেছেন, নতুন লেন্সের কারণে ফোনের ক্যামেরা পারফরম্যান্স আরও উন্নত হবে এবং অটোফোকাস সুবিধা বাড়বে। সেমকো মূলত কোরিয়ার কোম্পানি আর সানি অপটিক্যালের প্রধান কার্যালয় চীনে। এ দুটি প্রতিষ্ঠানই সেরা লেন্স সরবরাহকারী হিসেবে পরিচিত।

অ্যাপলের পরবর্তী ফোন, অর্থাৎ ২০২২ সালের ফোনের জন্য সেমকো পেরিস্কোপের মতো বিশেষ টেলিফটো লেন্স তৈরিতে কাজ করতে পারে। বর্তমানে চীনের হুয়াওয়ের ফোনে এ ধরনের লেন্স রয়েছে। কুয়ো বলছেন, এ বছরের আইফোনের লেন্সে পরিবর্তন আনবে অ্যাপল। তবে অ্যাপলের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছুই বলা হয়নি।

গুঞ্জন রয়েছে, নতুন আইফোন ১২ দুটি সংস্করণে বাজারে আসতে পারে। একটি হবে ৬ দশমিক ১ ইঞ্চি স্ক্রিন সুবিধার, আরেকটি ৬ দশমিক ৭ ইঞ্চি স্ক্রিন সুবিধার। দুটি সংস্করণেই ওএলইডি স্ক্রিন প্যানেল ব্যবহার করা হতে পারে। দুটি ফোনের ৬ জিবি র‍্যাম ও আরও বড় ব্যাটারি যুক্ত হতে পারে।

অ্যাপল নতুন আইফোন নিয়ে আগেভাগে কোনো তথ্য প্রকাশ করে না। তাই নতুন আইফোন ঘিরে বরাবরই নতুন পূর্বাভাস ও গুঞ্জন চলতে থাকে। অনেক ক্ষেত্রে এসব গুঞ্জনের মিল পাওয়া যায়। করোনা পরিস্থিতির কারণে অন্য মোবাইল ফোনের সঙ্গে টক্কর দিতে এবারের নতুন আইফোনের দাম কম হতে পারে বলে গুঞ্জন রয়েছে। গত মে মাসে নতুন আইফোনের দামের তথ্য ফাঁস করেছেন তথ্যপ্রযুক্তি বিশ্লেষক জন প্রসের। তাঁর দাবি, আইফোন ১২ মডেল ৬৪৯ মার্কিন ডলারে পাওয়া যাবে। নতুন আইফোন সংস্করণভেদে ৬৪৯ মার্কিন ডলার থেকে ১ হাজার ৯৯ ডলারে কিনতে পারবেন গ্রাহক। অর্থাৎ, বর্তমান বিশ্ব পরিস্থিতি মোকাবিলায় আইফোনের দাম কমিয়ে দিচ্ছে অ্যাপল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: