,


হিট করতে নয়া কৌশল
হিট করতে নয়া কৌশল

হিট করতে নয়া কৌশল

ডেস্ক রিপোর্টারঃ ‘পাগল মন’ গানটি শুনলে সবার আগে দিলরুবা খানের নামটি চোখের সামনে ভাসে। শাকিব ও বুবলী অভিনীত পাসওয়ার্ড সিনেমায় এই শিরোনামের একটি গান নতুন করে আলোচনায় এসেছিল। তবে এটি জনপ্রিয় ‘পাগল মন’ গানটি নয়, শুধু ওই গান থেকে দুটি লাইন নেওয়া হয়েছে। সংগীত পরিচালকেরা এটিকে ‘ক্রসওভার’ বলছেন। এই ধারার গানগুলো নিয়ে সংগীতাঙ্গনে আছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। কেউ দেখছেন ইতিবাচক হিসেবে, কেউ বলছেন নেতিবাচক।

সংগীত পরিচালক ফোয়াদ নাসের বাবু বলেন, ‘অনেকে কয়েকটি গান একসঙ্গে তৈরি করে “ম্যাশআপ” বলছে। আবার কেউ পুরোনো গানের লাইন নতুন গানে জুড়ে দিয়ে “ক্রসওভার” বলে চালিয়ে দিচ্ছে। এটা শুধুই নতুন গানটি নিয়ে শিল্পী, সংগীত পরিচালক, গীতিকার ও সুরকার সবার নিরাপত্তাহীনতার জন্য করা হচ্ছে। এখন কেউ যদি বলে থাকেন, পুরোনো গানটি করে শ্রোতাদের সামনে তুলে ধরা তা আমি মোটেও মানতে রাজি নই।’


তবে এই ধারাটিকে ইতিবাচক দেখছেন সংগীতশিল্পী কুমার বিশ্বজিৎ। এটাকে গান হিট করার নয়া কৌশলও ভাবছেন তিনি। আগামী সপ্তাহে ‘ওলট–পালট মন হয়ে যায়’ নামে এই ধারার একটি গান প্রকাশ করতে যাচ্ছেন তিনি । গানটিতে তাঁর গাওয়া পাগল বলো আর নিঠুর বলো গানটির দুটি লাইন জুড়ে দেওয়া হয়েছে। তাঁর মতে, এই প্রক্রিয়ায় পুরোনো গানটিকে নতুন করে শ্রোতাদের কাছে মনে করিয়ে দেওয়া যায়। এ ছাড়া শ্রোতার কাছে দ্রুত গানটি পৌঁছানোর কৌশল এটি।

কুমার বিশ্বজিৎ বলেন, ‘আজকাল অনেকেই রবীন্দ্রনাথ ও নজরুলের গানেও এমন চেষ্টা করছেন। এটাকে আমি ইতিবাচকভাবেই দেখছি। তবে অনেকে পুরোনো গানের সঙ্গে নতুন গান ব্লেন্ড করাকে সহজ মনে করলেও এটা মোটেও তা নয়। পুরোনো হিট গানের সঙ্গে নতুন গান যুক্ত করাটা অনেক কঠিন।’

সংগীত পরিচালক ফুয়াদ আল মুক্তাদির এই ধারায় গান করেছেন। সংগীতশিল্পী মিলা ‘শুকনো পাতা’ গানে নজরুলগীতি ‘শুকনো পাতার নূপুর পায়ে নাচিছে ঘূর্ণিবায়’ আর ‘ডিসকো বান্দর’ গানে ‘আই অ্যাম এ ডিসকো ড্যান্সার’ লাইনটি ব্যবহার করেন। সাম্প্রতিক সময়ে বেশ কয়েকটি চলচ্চিত্রের গানে এটি দেখা যায়। শাহেনশাহ ছবিতে ‘রসিক আমার’, সুপারহিরো ছবিতে ‘সোনাবন্ধু আমারে দিওয়ানা বানাইল’, ভালোবাসার রং সিনেমায় ‘প্রেম রসিয়া’ গানে ক্রসওভার করা হয়।

ভালোবাসার রং চলচ্চিত্রের গানে শওকত আলী ইমন ক্রসওভার করেছিলেন। তিনি বলেন, ‘সিনেমায় দুটি গানে এমনটা করেছি। ভালোবাসার রং সিনেমার গান তৈরির সময় প্রযোজক বলেছিলেন, নতুন গানে পুরোনো লাইন যোগ করে কিছু করতে পারি কি না, আমি তাঁর কথামতো চেষ্টা করেছি।’

তিনি বলেন, ‘এ ধরনের কাজে সুবিধা আছে। খুব সহজে হিট করানো যায়। এটা কৌশল যেমন, ব্যর্থতাও তেমন। নতুন গান হিট করতে পারছি না বলে পুরোনো গানের সহযোগিতা নিচ্ছি।’

সংগীতশিল্পী নকিব খান বলেন, ‘কেউ কেউ করছে। তবে এর মধ্যে সৃজনশীলতা আছে বলে আমি মনে করি না। নতুন গানে জনপ্রিয় গানের লাইন জুড়ে শ্রোতাদের আকৃষ্ট করার একটা চেষ্টা। তবে এটিও ঠিক, নতুন গানটি মানসম্মত না হলে পুরোনো গানের লাইন জুড়ে দেওয়া হোক না কেন, কোনো লাভ হবে না।’

এদিকে অনেকে মনে করছেন, এটি গান জনপ্রিয় করার নতুন কৌশল। কিন্তু মানসম্মত গান না তৈরি হলে এই কৌশলেও বেশিদূর আগানো যাবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: