,


সৈয়দপুরে দরিদ্র সেলিমের পাশে প্রতিভা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন

সৈয়দপুরে দরিদ্র সেলিমের পাশে প্রতিভা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন

সৈয়দপুর প্রতিনিধিঃ “সবার প্রয়োজনে আমরা” স্লোগানকে সামনে রেখে এ বছরের জুন মাসে সৈয়দপুরে নিজেদের পদযাত্রা শুরু করে প্রতিভা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। অসহায়, দরিদ্র মানুষের পাশে দাড়ানোই তাদের মূল লক্ষ্য। বর্তমানে এই সংগঠনের সদস্য সংখ্যা একুশ জন। তাদের কাজ মূলত নিজেদের আশেপাশে প্রকৃত অসহায়দের খুজে বের করা এবং নিজেদের সাধ্যমতো তাদের সাহায্য করা। প্রতিটি সদস্যের সম্মেলিত চেষ্টায় তারা অসহায়দের পাশে দাড়াতে সক্ষম হচ্ছে।

এই সংগঠনের প্রায় সকলে শিক্ষার্থী। তারা তাদের পকেট খরচ থেকে টাকা বাচিয়ে অসহায়দের সাহায্য করতে এগিয়ে আসছে। গতকাল দ্বিতীয় বারের মতো একজনের পাশে দাড়ালো তারা। সৈয়দপুরের হাতিখানা ক্যাম্পের বাসিন্দা সেলিম। দীর্ঘ ৪০ বছর তিনি বাদাম বিক্রি করেছেন। বর্তমানে তিনি ঝাল মুড়ি বিক্রি করে আসছেন। তবে অসুস্থতার কারনে এখন সেটিও করতে পারছেন না। বাসায় শুধু তিনি আর তার স্ত্রী থাকেন। দুজনেই অসুস্থতার মাঝে বসবাস করছেন। তাদের বসবাসের একমাত্র বেড়া চাটির ঘরটিও বসবাসের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। বৃষ্টি হলে সারারাত জেগে থাকতে হয় তাদের।

অসুস্থতার কারনে ব্যবসা করতেও পারছেন না তিনি তাই যে পুজি তার কাছে ছিলো তা ঔষুধে শেষ হয়েগেছে। গত তিনদিন ধরে তারা মুড়ি আর পানি খেয়ে দিন কাটাচ্ছেন। এমন খবর পাওয়া মাত্র তাদের পাশে দাড়ায় প্রতিভার সদস্যরা। গতকাল মঙ্গলবার (১৩ আগস্ট) প্রতিভা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সদস্যদের সম্মলিত প্রচেষ্টায় তার বাসায় উপস্হিত হয়ে নিজেদের সাধ্যমতো তাদের প্রয়োজনীয় খাদ্যদ্রব্য তুলে দেয় সদস্যরা।

প্রতিভার সদস্য নয়ন জানান, সমাজের অসহায়,দরিদ্র, অবহেলিত মানুষের পাশে দাড়ানো আমাদের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য। এভাবেই আমরা আগামীতেও তাদের পাশে দাড়াতে চাই।

আরেক সদস্য মোহাম্মদ আসপাক জানান, সকল সদস্যদের সম্মলিত চেষ্টায় আমরা অসহায়দের পাশে দাড়াতে পারছি। অন্যের মুখে হাসি ফুটাতে পারছি এরচেয়ে বড় পাওয়া আর কিছু নেই। তাদের হাসিটাই আমাদের বড় সাফল্য।

এসময় উপস্হিত ছিলেন তামিম রহমান, নওশাদ আনসারী, সংবাদকর্মী মোহাম্মদ মোকাররম হোসেন, কুরবান আলী, মাজেদুল ইসলাম, রাকিব হাসান সহ প্রতিভার সদস্যরা ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: