,


যুগান্তরের সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি জেহাদুলের উপর সন্ত্রাসীদের হামলা-হাসপাতালে ভর্তি

সিরাজগঞ্জে সাংবাদিক জেহাদুলের উপর সন্ত্রাসীদের হামলা

স্টাফ রিপোর্টারঃ দৈনিক যুগান্তর পত্রিকার সিরাজগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি ও দৈনিক আজকের সিরাজগঞ্জ পত্রিকার সম্পাদক, সিরাজগঞ্জ রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি মো. জেহাদুল ইসলামের উপর হামলা চালিয়েছে একদল সন্ত্রাসীরা।

বুধবার সকাল সোয়া ১১ টার দিকে শহরের চোরাস্তার মোড় বাহিরগোলা রোডের নিজ বাসভবন থেকে বের হয়ে পেশাগত দায়িত্ব পালনের উদ্দেশ্যে পেপুলবাড়ীয়া যাত্রা পথে বাহিরগোলা মসজিদের উত্তর পাশে অবস্থান নেয়া একদল সন্ত্রাসীদের হামলার শিকার হন তিনি। এ ঘটনায় পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

পরিবার ও প্রত্যক্ষদশী সূত্রে জান যায়, জেহাদুল ইসলাম তার পেশাগত দায়িত্ব পালন ও কোরবানির পশু ক্রয় করার উদ্দেশ্যে নগদ ৭৫ হাজার টাকাসহ সাংবাদিক রেজাউল করিম খাঁনকে সাথে নিয়ে নিজ বাসভবন চৌরাস্তা মোড় বাহিরগোলা রোড ইসলামিয়া আরোগ্য ভবনের পূর্ব পাশে দাঁড়ায়।

পরে একটি খালি ব্যাটারি চালিত অটোরিক্সায় ওটার পর ড্রাইভার এলোমেলো ভাবে ঘোরাঘুরি করে। এদিকে অন্য যাত্রীরা ড্রাইভার না পেয়ে অন্য অটোরিক্সায় চলে যায়। এভাবে প্রায় ২০ মিনিট অটোরিক্সায় অবস্থান নেয়ার পরও ছেড়ে না দেয়ায় রিক্সা থেকে নেমে অন্য রিক্সায় উঠতে গেলে সন্ত্রাসী ড্রাইভার মো. শাহীন বাধা দেয়।

এরই এক পর্যায়ে তর্কবির্তক শেষে অন্য রিক্সায় ওঠে কাটেরপুলের দিকে যাত্রা করলে পূর্বেই বাহিরকোলা মসজিদের উত্তর পাশে অবস্থান নেয়া সেই ড্রাইভার ও তার ৪/৫ জন সন্ত্রাসী বাহিনী তার বুঝে উঠার আগেই রড দিয়ে বাম পায়ে বেধড়ক মারপিট করে। এতে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন এবং ডাক-চিৎকার দিতে থাকেন।

পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন।

এবিষয়ে সিরাজগঞ্জ প্রেসক্লাব এর সাধারণ সম্পাদক ফেরদৌস রবিন, সিরাজগঞ্জ রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম ইন্না ও সাংগঠনিক সম্পাদক এএইচ আলমগীর কবিরসহ সিরাজগঞ্জের কর্মরত সকল সাংবাদিক ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ এবং নিন্দা জানিয়ে সন্ত্রাসীদের চিহিৃত করে দ্রুত আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য পুলিশের প্রতি দাবি জানিয়েছে।

দায়িত্বরত চিকিৎসক শহীদ এম মনসুর আলী মেডিক্যাল কলেজের সহযোগী অধ্যাপক ডা. নজরুল ইসলাম জানান, তাকে রড দিয়ে মারপিট করায় বাম পায়ের বেশ কয়েকটি জায়গায় জখম সৃষ্টি হয়েছে।

এ ব্যাপারে সিরাজগঞ্জ সদর থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ দাউদ জানান, এ ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছিলো। মামলা হলে তদন্তের মাধ্যমে আমরা সন্ত্রাসীদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় নিয়ে আসবো। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছে জেহাদুল ইসলামের বড় ভাই,সিরাজগঞ্জ প্রেসক্লাব এর সাবেক সভাপতি জাকিরুল ইসলাম সান্টু।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: