,


সাপাহার সীমান্তে বাংলাদেশী যুবকের হাতের আঙ্গুলের ১০টি নখ উপড়ে নির্যাতন চালিয়েছে বিএসএফ

সাপাহার সীমান্তে বাংলাদেশী যুবকের হাতের আঙ্গুলের ১০টি নখ উপড়ে নির্যাতন চালিয়েছে বিএসএফ

সাপাহার (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ নওগাঁর সাপাহার সীমান্তে এক বাংলাদেশী যুবকের হাতের আঙ্গুলের ১০টি নখ উপড়ে অমানবিক ও নির্মম নির্যাতন চালিয়েছে ভারতীয় বিএসএফ।

শুক্রবার দিবাগত ভোর রাতে উপজেলার পাতাড়ী সীমান্তের বিপরীতে ভারতের রাঙ্গামাটি ৬০বিএসএফ জোয়ানরা এ নির্মম নির্যাতন চালিয়েছে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে শুক্রবার দিবাগত রাতে একদল গরু ব্যাবসায়ীর সাথে উপজেলার দক্ষিন পাতাড়ী (তুলশী ডাঙ্গা) গ্রামের কাবির উদ্দীন এর ছেলে আজিম উদ্দীন (২৮) রাখাল হিসেবে ভারত অভ্যন্তরে গরু আনতে যায়। গরু নিয়ে তারা শনিবার ভোরে সীমান্তের ২৪২ আর এস পিলার এলাকা দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশের চেষ্টা করলে ভারতের বামন গোলা থানার,রাঙ্গামাটি ক্যাম্পের ৬০বিএসএফ’র টহলরত জোয়ানরা তাদের পিছু ধাওয়া করে।

এসময় অন্যান্যরা গরু রেখে পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও আজিম উদ্দীন বিএসএফ’র হাতে ধরা পড়ে। পরে তারা তাকে ভারতীয় বিএসএফ ক্যাম্প এলাকায় নিয়ে গিয়ে জীবন্ত অবস্থায় দু’হাতের প্রত্যেকটি আঙ্গুলের উপরের অংশ (নখ) উপড়ে ফেলে এবং শারিরীক নির্যাতন করে।

এসময় আজিম উদ্দীন বিএসএফ’র অমানুষিক নির্যাতনে জ্ঞান হারিয়ে ফেললে অচেতন অবস্থায় তারা তাকে সীমান্তবর্তী পুর্ণভবা নদীর জিরো পয়েন্টে ফেলে রেখে চলে যায়।

সকাল ৬টার দিকে আদাতলা ১৬বিজিবি’র একটি টহল দল ওই এলাকায় গেলে তারা নদীর কিনারে ওই যুবককে অচেতন অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে সেখান থেকে তাকে উদ্ধার করে ক্যাম্পে নিয়ে আসে। এর পর সকাল ১০টার দিকে আদাতলা বিজিবি সদ্যসরা আহত যুবককে সাপাহার উপজেলা স্বাস্থ্যকপ্লেক্সে ভর্তি করায়। বিএসএফ’র নির্যাতনের শিকার আহত আজিম উদ্দীন এখন সাপাহার হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আদাতলা বিজিবির পক্ষথেকে থানায় একটি মামলা দায়েরের প্রস্ততি চলছিল। এব্যাপারে সকাল থেকে আদাতলা বিজিবি ক্যম্পের কমান্ডার সুবেদার হাবিব এর সাথে ফোনে কথা বলার চেষ্টা করলে তিনি সাংবাদিকদের সাথে কথা বলতে রাজি না হওয়ায় তার সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি তবে ১৬বিজিবি ব্যাটালিয়ান অধিনায়ক লে:কর্ণেল তুহিন মোহাম্মাদ মাসুদ এর সাথে মোবাইল ফোনে কথা হলে তিনি ঘটনার কথা স্বীকার করেছেন।

শেষে বিজিবির পক্ষ থেকে সাপাহার থানায় একটি মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি চলছে বলেও তিনি সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: