,


সাকিব যেন ২০১১ বিশ্বকাপের যুবরাজ
সাকিব যেন ২০১১ বিশ্বকাপের যুবরাজ

সাকিব যেন ২০১১ বিশ্বকাপের যুবরাজ

ডেস্ক রিপোর্টারঃ সাকিব আল হাসানের দারুণ প্রশংসা করেছেন ভারতের সাবেক পেসার জহির খান। তাঁর মতে, ২০১১ বিশ্বকাপে যুবরাজ সিংয়ের মতোই এবার পারফর্ম করছেন সাকিব

বিশ্বকাপে জীবনের সেরা ফর্মে আছেন সাকিব আল হাসান। বাংলাদেশ যে তিন ম্যাচ জিতেছে, সব কটিতেই সাকিব ম্যাচসেরা। ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে হেরে যাওয়া ম্যাচগুলোতেও সাকিব ছিলেন পারফরমার। আফগানিস্তানের বিপক্ষে গতকাল তো স্পিন ভেলকিতে তুলে নিয়েছেন ৫ উইকেট। বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি রান সাকিবের, বিভিন্ন রেকর্ড তাঁর পায়ে পড়ছে লুটিয়ে। সাকিবের প্রশংসায় পঞ্চমুখ ক্রিকেট দুনিয়া। ভারতের সাবেক পেসার জহির খান তো সাকিবকে ‘যুবরাজ সিং’ই মনে করছেন।

২০১১ বিশ্বকাপ জিতেছিল ভারত। সেবার দেশের বিশ্বকাপ জয়ে দারুণ অবদান ছিল যুবরাজ সিংয়ের। ব্যাটে-বলে যুবরাজের পারফরম্যান্স ছিল অনন্য। সাকিবকে তিনি তাই এবারের বিশ্বকাপে বাংলাদেশের যুবরাজ মনে করছেন।

কাল আফগানদের বিপক্ষে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে এক ম্যাচে ব্যাট হাতে ফিফটি আর বল হাতে ৫ উইকেট নিয়েছেন সাকিব। তাঁর পারফরম্যান্স যে অনেকটা ২০১১ সালের যুবরাজের মতো, সেটিই মনে করিয়ে দিয়েছেন জহির। টুর্নামেন্ট-সেরা হওয়া যুবরাজ ব্যাটিংয়ে ৩৬২ রান করার পাশাপাশি বল হাতে নিয়েছিলেন ১৫ উইকেট। এর মধ্যে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে অপরাজিত ৫০ রান করার আগে ৫ উইকেট নিয়েছিলেন যুবরাজ। বিশ্বকাপের ইতিহাসে এত দিন সেটাই ছিল এক ম্যাচে ফিফটির সঙ্গে ৫ উইকেট নেওয়ার রেকর্ড কোনো খেলোয়াড়ের।

কিছুদিন আগে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বলেছেন যুবরাজ। সংবাদমাধ্যমে বাংলাদেশ-আফগানিস্তান ম্যাচে বিশেষজ্ঞের মতামত দেওয়ার সময় যুবরাজের প্রসঙ্গ টেনে সাকিবের প্রশংসা করেন জহির। কোনো রাখঢাক না রেখেই জহির বলেছেন, ২০১১ বিশ্বকাপ যুবরাজ যেমন কাটিয়েছেন এবার সাকিবেরও তেমন বিশ্বকাপ কাটছে।

জহির বলেন, ‘সে যুবরাজ সিংয়ের মতো টুর্নামেন্ট পার করছে। ২০১১ বিশ্বকাপে যুবরাজ প্রতি ম্যাচেই ব্যাটে-বলে অবদান রেখেছে। বাংলাদেশের হয়ে সাকিব ঠিক এ কাজটাই করছে। এটা তার জন্য দারুণ এক টুর্নামেন্ট। দিন দিন সে আরও ভালো পারফর্ম করছে। তার সবচেয়ে কম রান বোধ হয় ৪১। ব্যাট হাতে সে ভীষণ ধারাবাহিক আর বল হাতেও ১০ ওভারের কোটা পূরণ করছে। বোলিংয়ে একটা দিন খারাপ যেতেই পারে। কিন্তু ম্যাচের ফলে সে প্রভাব (ইমপ্যাক্ট) রাখছে।’

বিশ্বকাপে এ পর্যন্ত ৬ ম্যাচে সাকিবের সংগ্রহ—৭৫, ৬৪, ১২১, ১২৪*, ৪১ ও ৫১। শুধু অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষেই ন্যূনতম ৫০ রানের দেখা পাননি সাকিব। জহির মনে করেন, বিশ্বকাপে ব্যক্তিগত পারফরম্যান্স দিয়ে ‘দলকে টেনে তোলার সঠিক উদাহরণ হতে পারেন সাকিব।’ জহির খানের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন ভারতের ব্যাটসম্যান রবিন উথাপ্পা। আইপিএলে কলকাতা নাইট রাইডার্সে সাকিবের সতীর্থ হিসেবে খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে উথাপ্পার। সেই অভিজ্ঞতা থেকে উথাপ্পা বলেন, ‘সে (সাকিব) বড় ম্যাচের খেলোয়াড়। ভীষণ লড়াকু। সব সময় পারফর্ম করতে চায়। একা জেতাতে চায়। যেকোনো দায়িত্ব নিতে প্রস্তুত। বোলিং শুরু করাতে চান, করবে। তিনে ব্যাট করতে হবে, পারবে। কিংবা পিঞ্চ হিটারের ভূমিকাও নিতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: