,


সরকারী স্কুল তো নয়, যেন পকুর !
সরকারী স্কুল তো নয়, যেন পকুর !

সরকারী স্কুল তো নয়, যেন পকুর !

ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ  দুর থেকে দেখলে মনে হবে ছোখাট একটি পুকুর। না। এটি কোন পকুর বা ডোবা নয়। সরকারী একটি প্রাইমারি স্কুলের মাঠ। যে মাঠে হৈচৈ করে খেলা করার কথা কোমলমতি শিশুদের সেই মাঠে জলকেলি করে হাসের দল। এখন স্কুলের সামনে থৈ থৈ পানি। গোটা মাঠ ডুবে আছে পানিতে। ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার সারুটিয়া ইউনিয়নের ১৪১ নং বড়–রিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালঢের মাঠ এটি। মাঠের চারিদিকে বসতবাড়িগুলো উচু হওয়ায় সব পানি এসে জমা হয় স্কুল মাঠে। তাই সামান্য বৃষ্টি হলেই স্কুল মাঠটি পুকুরে পরিণত হয়। গোটা বর্ষা মৌসুমে সর্বক্ষন পানি জমে থাকার কারণে কেচো, সাঁপসহ পোকামাকড় স্কুলের বিভিন্ন কক্ষে ঢুকে পড়ে। এতে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা স্কুল বিমুখ হয়ে পড়েছে। গ্রামবাসি স্কুল মাঠে দ্রুত মাটি ভরাটের দাবী জানিয়েছেন। বড়–রিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সাদিয়া খাতুন ও আলিফ জানায়, দীর্ঘদিন ধরে পানি জমে থাকায় স্কুলে যেতে মন চায় না। স্কুলের কেউ খেলাধুলা করতে পারেনা। স্কুল মাঠে হাটুপানি পানি জমে থাকায় ক্লাসরুমে পোকামাকড় ও কেচোর বসবাস। অভিভাবক বাদশা মোল্লা, মনসুর আলী ও ওহিদুল ইসলাম বলেন, এই বর্ষা মৌসুমে বিদ্যালয় মাঠে দীর্ঘদিন পানি জমে থাকায় পঁচা দুর্গন্ধে পরিবেশ দুষিত হয়। ফলে সন্তানেরাও পাঠগ্রহণে অমনোযোগী হচ্ছে বলে তাদের অভিযোগ। বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি শামছুদ্দিন জোয়ার্দ্দার বলেন, এই বিদ্যালয়টি ১৯৭৮ইং সালে প্রতিষ্ঠিত। কিন্তু উন্নয়নের ছোয়া লাগেনি। এলাকার মেম্বর চেয়ারম্যানরা স্কুল মাঠে মাটি ভরাটের কোন উদ্যোগ নেয় না। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জহুরুল ইসলাম জানান, এ বিদ্যালয়ে বর্তমানে ১০৯ জন শিক্ষার্থী অধ্যায়নরত। স্কুল মাঠে পানি থাকায় এসব শিক্ষার্থীদের পাঠদানে নানা দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। তিনি বলেন স্কুল মাঠে পানি জমে থাকার বিষয়টি উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে জানানো হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: