,


শচীন টেন্ডুলকার যখন ইমরান খান!
শচীন টেন্ডুলকার যখন ইমরান খান!

শচীন টেন্ডুলকার যখন ইমরান খান!

ডেস্ক রিপোর্টারঃ পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সহকারী নাইম-উল-হক টুইটারে ইমরান খানের ছবি মনে করে শচীন টেন্ডুলকারের ছবি পোস্ট করেন। আর সেটা নিয়েই হাসিঠাট্টায় মেতেছে দুই দেশের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারীরা।

বিশ্বকাপে কিছুদিন আগেই ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ দেখল বিশ্ব। খেলায় উত্তেজনার ছিটেফোঁটা না থাকলেও ম্যাচ নিয়ে লোকের আগ্রহ ছিল তুঙ্গে। লজ্জার এক হারে বিশ্বকাপে ভারতকে প্রথমবারের মতো হারানোর স্বপ্ন সাঙ্গ হয়েছে পাকিস্তানের। এ হতাশার রেশ কাটতে না কাটতেই পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী এবং বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক ইমরান খানের এক সহকারী হাস্যকর ভুল করলেন!

গত বৃহস্পতিবার ইমরান খানের বিশেষ সহকারী নাইম-উল হক নিজের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে একটি ছবি পোস্ট করে ক্যাপশনে লেখেন ‘ইমরান খান ১৯৬৯’। মূলত ইমরান খানের পুরোনো একটি ছবি পোস্ট করাই ছিল তাঁর উদ্দেশ্য। কিন্তু সেখানেই গোল বাধিয়েছেন তিনি। ভুলক্রমে ইমরান খানের বদলে পোস্টে শচীন টেন্ডুলকারের ছবি পোস্ট করেন নাইম।

আর সেটা নিয়েই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শুরু হয় হাস্যরস। ভারতীয় টুইটার ব্যবহারকারীরা টুইটের জবাবে অনেকেই রসাত্মক কায়দায় ছবি এবং ক্যাপশনের ধাঁধা তৈরি করেন। কেউ কোহলির ছবি পোস্ট করে সেটিকে ইনজামাম-উল হকের ছবি হিসেবে অভিহিত করছেন তো কেউ আবার ‘লগান’ সিনেমার একটি স্থিরচিত্র শেয়ার করে সেটিকে অশ্বিন এবং বাটলারের পুরোনো ছবি বলে চালিয়ে দিচ্ছেন।

এদিকে ভারতের সঙ্গে হারের পর চারদিক থেকে সমালোচনার মুখে পড়েছে পাকিস্তান। বিশ্বকাপ থেকে কোনোমতে মান বাঁচিয়ে দেশে ফেরার প্রস্তুতি নিচ্ছিল তারা। কিন্তু গতকাল ইংল্যান্ডকে হারিয়ে চমক দেখানো শ্রীলঙ্কা বিশ্বকাপ জমিয়ে দিয়েছে। সে সুবাদে পাকিস্তানও কিছুটা আশার আলো দেখছে। তবে সেই সূক্ষ্ম আশা বাঁচিয়ে রাখতে পরের তিন ম্যাচে জয়ে কোনো বিকল্প নেই আমির-সরফরাজদের সামনে।

আজ লর্ডসে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে মাঠে নামবে পাকিস্তান। ম্যাচটি জিততে আত্মবিশ্বাসী অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ, ‘আমরা আত্মবিশ্বাসী। টুর্নামেন্ট এখন অনেক উন্মুক্ত। আমরা ম্যাচ ধরে ধরে খেলতে চাই। আশা করি, কাল দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারানোর মাধ্যমেই আমরা নতুনভাবে যাত্রা শুরু করব।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: