,


রণবীরকে নিয়ে ভয়ে আলিয়া!
রণবীরকে নিয়ে ভয়ে আলিয়া!

রণবীরকে নিয়ে ভয়ে আলিয়া!

ডেস্ক রিপোর্টারঃ আমাদের দেশে বাচ্চাদের কপালের কোণে দেখা যায় কালো গোল টিপ। এই টিপের নাকি অনেক ক্ষমতা। কেননা, এই টিপই বাচ্চাকে রক্ষা করে সব খারাপ নজর থেকে। এবার মনে হচ্ছে বলিউড তারকা আলিয়া ভাটেরও কালো টিপের প্রয়োজন। সম্প্রতি বোম্বে টাইমসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তাঁর আর রণবীর কাপুরের সম্পর্ক নিয়ে এই তারকা বলেছেন, ‘যেন নজর না লাগে’।

আলিয়া ভাট ও রণবীর কাপুর দুজনেই তাঁদের সম্পর্ক নিয়ে কোনো লুকোচুরি খেলেননি গণমাধ্যমের সঙ্গে। সম্পর্কের কটা দিন যেতে না যেতেই ঘটা করে স্বীকার করেছেন নিজেদের ভালোবাসার কথা। আর সেই সহজ স্বীকারোক্তি নিয়ে দিস্তার পর দিস্তা লেখা হয়েছে প্রেমকাব্য। আলিয়া জানিয়েছেন, রণবীর সব সময় তাঁকে সাহায্য করতে মুখিয়ে থাকে। রণবীর এমনই একজন যে সব সময় একজন মানুষ, একজন অভিনেতা আর একজন বন্ধু হিসেবে মুগ্ধ করে আলিয়াকে।

ওই সাক্ষাৎকারে আলিয়া বলেন, ‘আমি এটাকে প্রেমের সম্পর্ক না বলে বরং বন্ধুত্বই বলব। সেই বন্ধুত্ব যেটা কেবল অকৃত্রিমতা আর সততা দিয়ে তৈরি। আর পৃথিবীতে কিছুই এর চেয়ে মধুর হতে পারে না।’ দুজনের পেশাজীবন নিয়েও কথা বলেন আলিয়া। বলেন, ‘আমরা দুজনে ভিন্ন দুটো মানুষ। আমরা দুজন আমাদের পেশাজীবনের সবচেয়ে ভালো সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছি। রণবীর একটার পর একটা কাজ করছে। আর আমারও একই অবস্থা। তাই আমাদের খুব কমই একসঙ্গে দেখতে পাওয়া যায়।’ তাদের দুজনের সম্পর্ক নিয়ে আলিয়া আরও বলেন, ‘আমাদের একসঙ্গে যতটা সুন্দর দেখা যায়, আমদের সম্পর্কটা ঠিক ততটাই সুন্দর আর সহজ।’ একটু থেমে মিষ্টি হেসে বলেন, ‘যেন নজর না লাগে’।

রণবীর কাপুরের অভিনয় নিয়ে যত সুনামই থাকুক না কেন, সম্পর্কের ক্ষেত্রে দুর্নাম রয়েছে। তিনি নাকি বেশি দিন একটা সম্পর্কে থাকতে পারেন না। রণবীর কাপুরের প্রেমিকাদের লম্বা তালিকায় অবন্তিকা মালিক থেকে শুরু করে নন্দিতা মাহাতানি, সোনম কাপুর, দীপিকা পাড়ুকোন, অ্যাঞ্জেলা জনসন, নার্গিস ফাকরি, ক্যাটরিনা কাইফ ও মাহিরা খানের পরেই যুক্ত হয়েছে আলিয়া ভাটের নাম। তাই আলিয়া ভাটই যে এই তালিকার শেষ নাম, তা বলা যাচ্ছে না কিছুতেই। এ জন্যই আলিয়া ভাট যখন বলেন—‘যেন নজর না লাগে’, এই কথায় যৌক্তিকতা মেলে। আলিয়ার এই ভয় অমূলক নয়।

কাজের চাপে আলিয়াকে মাঝে মাঝেই প্রচণ্ড ধকলের ভেতর দিয়ে যেতে হয়। তখন রণবীর নাকি আলিয়াকে উপদেশ দিয়েছিলেন, কাজের সময় শুধু কাজে মন দিতে। অন্য কিছু নিয়ে কোনো দুশ্চিন্তা না করতে। এই উপদেশ নাকি বেশ স্বস্তি দিয়েছে আলিয়াকে। তবে রণবীরের যে ‘হৃদয় ভাঙার বদভ্যাস’, তাতে দুশ্চিন্তা না করে আর উপায় কী!

কিছুদিন পর পরই এই জুটির বাগদানের গুজব রটে। দুই পরিবারও চাচ্ছে বিয়ের মাধ্যমে তাঁদের সম্পর্ককে স্থায়ীত্ব দিতে। রণবীর কাপুরের বাবা ঋষি কাপুরের ক্যানসার আর তাদের ব্যস্ততা সেই বিয়ের তারিখ কেবল পেছনে নিয়ে যাচ্ছে। তবে আয়ান মুখার্জির ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ ছবি এই জুটিকে একসঙ্গে সময় কাটানোর সুযোগ করে দিয়েছে। হোক না তা ক্যামেরার সামনে!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: