,


মর্যাদার লড়াইয়ে জিততে পারলনা রিয়াল মাদ্রিদ

মর্যাদার লড়াইয়ে জিততে পারলোনা রিয়াল মাদ্রিদ

খেলা ডেস্কঃ সান্তিয়াগো বের্নাবেউয়ে শনিবার রাতে লা লিগার ম্যাচটি গোলশূন্য ড্র হয়েছে। এই নিয়ে লিগে টানা দুই ম্যাচ জয়শূন্য রইলো রিয়াল। গত বুধবার সেভিয়ার মাঠে ৩-০ গোলে হেরেছিল দলটি।

স্পেনের শীর্ষ লিগে দুদলের মধ্যে এই নিয়ে টানা চার ম্যাচ ড্র হলো। প্রতিবেশী ক্লাবটির বিপক্ষে রিয়াল সবশেষ জেতে ২০১৬ সালের নভেম্বরে। আতলেতিকোকে তাদেরই মাঠে ৩-০ গোলে হারিয়েছিল ইউরোপের সফলতম দলটি।

ম্যাচের শুরু থেকেই বল দখলে এগিয়ে ছিল রিয়াল। তবে প্রথমার্ধে আক্রমণে আধিপত্য ছিল অতিথিদের। প্রথম পাঁচ মিনিটে দুটি সুযোগও পায় তারা; কিন্তু সাফল্য মেলেনি। সাউল নিগেসের শট গোলরক্ষক থিবো কোর্তোয়া ফেরানোর পর অঁতোয়ান গ্রিজমানের শট ক্রসবারের উপর দিয়ে যায়।

অষ্টাদশ মিনিটে দারুণ এক পাল্টা আক্রমণে গোলরক্ষককে একা পেয়ে যান গ্রিজমান। কিন্তু এগিয়ে আসা কোর্তোয়াকে পরাস্ত করতে পারেননি ফরাসি ফরোয়ার্ড। ৩৭তম মিনিটে আরেকটি পাল্টা আক্রমণে রিয়াল গোলরক্ষককে একা পান দিয়েগো কস্তা। কিন্তু এবারও এক হাত দিয়ে রুখে দেন এ বছরের ফিফার সেরা গোলরক্ষক।
এই অর্ধে রিয়ালের উল্লেখযোগ্য সুযোগটি আসে ২১তম মিনিটে। টনি ক্রুসের ফ্রি-কিকে গ্যারেথ বেলের ভলি অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়।

প্রথমার্ধের শেষ দিকে স্বরূপে ফেরার আভাস দেওয়া রিয়াল বিরতির পর শুরু থেকেই রক্ষণে চাপ বাড়ায়। ৬৬তম নিজেদের সেরা সুযোগটি পায় তারা। বাঁ দিক থেকে ক্রুসের পাস ডি-বক্সে ফাঁকায় পান মার্কো আসেনসিও। সামনে একমাত্র বাধা ছিল ইয়ান ওবলাক; কিন্তু হাত প্রসারিত করে রুখে দেন স্লোভেনিয়ার গোলরক্ষক।

শেষ ১৫ মিনিটের প্রায় পুরোটা সময় একচেটিয়া আক্রমণ করে যায় রিয়াল। আতলেতিকোর জমাট রক্ষণে তার সবই ভেস্তে যায়। ফলে টানা দুই ম্যাচে জালের দেখা না পাওয়ার হতাশায় মাঠ ছাড়ে ইউরোপ চাম্পিয়নরা।

নির্ধারিত সময়ের শেষ দিকে করিম বেনজেমাকে তুলে ১৮ বছর বয়সী ব্রাজিলিয়ান ভিনিসিয়াস জুনিয়রকে নামান লোপেতেগি। অভিষেকে মাঠে নেমেই গতির দ্যুতি ছড়ান তিনি। যোগ করা সময়ে একটা ভালো সুযোগ পেয়েই যা্চ্ছিলেন; কিন্তু তাকে ফাউল করে দলকে রক্ষা করেন আনহেল কোররেয়া।
সাত ম্যাচে চার জয় ও দুই ড্রয়ে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে রিয়াল মাদ্রিদ।

আরেক ম্যাচে আথলেতিক বিলবাওয়ের সঙ্গে ১-১ ড্র করা বার্সেলোনা সমান পয়েন্ট নিয়ে গোল ব্যবধানে এগিয়ে শীর্ষে আছে।

১ পয়েন্ট কম নিয়ে তৃতীয় স্থানে আছে সেভিয়া। চতুর্থ স্থানে থাকা আতলেতিকোর পয়েন্ট ১২।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: