,


ভারতের ব্যাটিংয়ে অবাক সবাই, অদ্ভুত ঠেকছে লিনেকারের
ভারতের ব্যাটিংয়ে অবাক সবাই, অদ্ভুত ঠেকছে লিনেকারের

ভারতের ব্যাটিংয়ে অবাক সবাই, অদ্ভুত ঠেকছে লিনেকারের

ডেস্ক রিপোর্টারঃ ৩৩৭ রান তাড়া করতে গিয়ে গতকাল ম্যাচ হেরে গেছে ভারত। ভারতের ম্যাচ হার নিয়ে যতটা না আলোচনা হচ্ছে, তার থেকে বেশি সমালোচনা হচ্ছে হারের ধরন নিয়ে। এমন ধীরগতির ব্যাটিং করা ভারতকে যে কেউ চেনে না! অথচ বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কার সেমিফাইনালে যাওয়ার আশা বাঁচিয়ে রাখার জন্য ভারতের জয়টা বড় দরকার ছিল। ম্যাচ শেষে ভারতের ব্যাটিং নিয়ে তাই সমালোচনা হচ্ছে সর্বত্র।

শেষ পাঁচ ওভারে দরকার ছিল ৭১ রান। ক্রিজে তখন মহেন্দ্র সিং ধোনি, ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সেরা ‘ফিনিশার’ বলা হয় যাঁকে। ভারতের মারকাটারি ব্যাটিংয়ের অন্যতম বড় অস্ত্র। তাঁকে সঙ্গ দিচ্ছিলেন কেদার যাদব। চেন্নাই সুপার কিংসের হয়ে তিনিও বেশ কিছু ম্যাচ জিতিয়েছেন দলকে। এই দুজনই শেষ ৫ ওভারে ৩৭ রানের বেশি তুলতে পারলেন না! সবাই বিস্মিত তাঁদের ব্যাটিংয়ের ধরনের। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এ নিয়ে চলছে কড়া সমালোচনা। সাবেক ক্রিকেটাররা তো করছেনই; ভারতের শেষ দিকের ব্যাটিং নিয়ে সমালোচনা করেছেন সাবেক ইংলিশ তারকা ফুটবলার গ্যারি লিনেকারও।

ধীরগতির ব্যাটিংয়ের সময় ধারাভাষ্য দিচ্ছিলেন সাবেক ইংলিশ অধিনায়ক নাসের হুসেইন। ধোনির এমন টুকটুক করে খেলার মর্ম বোঝেননি তিনি, ‘আমি কিছুই বুঝতে পারছি না। হচ্ছেটা কী! ওরা যেভাবে ব্যাটিং করছে, ভারতের তো এমন ব্যাটিং দরকার নেই। ভারতের এখন রান দরকার। তারা কী করছে? অনেক ভারতীয় ভক্ত মাঠ থেকে বেরিয়ে যাচ্ছে। অবশ্যই তারা ধোনির মারকাটারি ব্যাটিং দেখতে এসেছিল! এটা বিশ্বকাপের খেলা! বিশ্বকাপের সেরা দুটি দল খেলছে। ও কেন জেতার চেষ্টা করছে না?’

ধোনির ঝুঁকি না নেওয়া দেখে কোনো ভারতীয়ই খুশি হবে না, বলেছেন নাসের, ‘ভারতের সমর্থকেরা তাদের দলকে লড়তে দেখতে চায়। তারা যায়, তাদের দল হারলেও যেন লড়াই করে হারে। কিন্তু এভাবে কেন? জেতার জন্য ঝুঁকি কেন নিচ্ছে না তারা?’

সাবেক ভারতীয় ক্রিকেটার ও ধারাভাষ্যকার সঞ্জয় মাঞ্জরেকারও বিরক্ত ধোনি-কেদারদের ব্যাটিং দেখে, ‘ভারতকে হারানোর কোনো দল থেকে থাকলে সেটা ইংল্যান্ড। যদিও শেষ কয়েক ওভারে ধোনির ব্যাটিং আমার মাথায় ঢোকেনি।’

১৯৮৬ বিশ্বকাপ ফুটবলের সর্বোচ্চ গোলদাতা, সাবেক ইংলিশ তারকা গ্যারি লিনেকারও টুইট করেছেন ভারতীয় দলের ব্যাটিং নিয়ে। তিনি ধোনি-কেদারদের ব্যাটিংয়ের অর্থই বুঝতে পারেননি, ‘খেলার শেষটা বেশ অদ্ভুত ঠেকেছে আমার কাছে। শেষ কয়েক ওভারের আগ পর্যন্ত ম্যাচটা ভালোই ছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: