,


নিষ্ঠুর আচরণ করা হয়েছে সরফরাজের সঙ্গে

নিষ্ঠুর আচরণ করা হয়েছে সরফরাজের সঙ্গে

স্পোর্টস ডেস্কঃ ভারতের বিপক্ষে হারের পর সরফরাজ আহমেদের ব্যাপক সমালোচনা হয়েছিল। টুর্নামেন্ট শেষ হয়ে যাওয়ার পর এবার অধিনায়কের পাশে দাঁড়ালেন পাকিস্তানের কোচ মিকি আর্থার।
ভারতের কাছে হারের পর সরফরাজ আহমেদকে কম লাঞ্ছনা সহ্য করতে হয়নি! কেউ খোঁচা দিয়েছেন ফিটনেস নিয়ে, আবার কেউ বা রসিকতা করেছেন মাঠে হাই তোলা নিয়ে। এত দিন এ ব্যাপারে কিছুই বলেননি পাকিস্তানের কোচ মিকি আর্থার। তবে পাকিস্তানের বিশ্বকাপ শেষ হয়ে যাওয়ার পর এবার মুখ খুলেছেন। বলেছেন, ভারত ম্যাচের পর সরফরাজের সঙ্গে নিষ্ঠুর আচরণ করা হয়েছে।

টুর্নামেন্টের শুরুটা ভালো না হলেও শেষদিকে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছিল পাকিস্তান। শেষদিকে টানা চারটি ম্যাচও জিতেছে। কিন্তু খারাপ রান রেটের কারণে নিউজিল্যান্ডের চেয়ে পেছনে পড়ে সেমিফাইনালে ওঠা হয়নি। তবে সেমিফাইনালে না উঠতে পারলেও বাংলাদেশকে ৯৪ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়ে টুর্নামেন্ট শেষ করেছে সরফরাজের দল। ম্যাচ শেষে কথা বলতে এসে তাই সরফরাজের প্রশংসাই করলেন দক্ষিণ আফ্রিকান এই কোচ।

যেভাবে সব সমালোচনা সামাল দিয়েছেন, সে জন্য সরফরাজকে কৃতিত্বও দিয়েছেন আর্থার, ‘ওর (সরফরাজ) সঙ্গে যে ব্যবহার করা হয়েছে, এরপর ও যেভাবে সবকিছু সামাল দিয়েছে, সেটির জন্য কৃতিত্ব প্রাপ্য। ভারত ম্যাচের পর ওর সঙ্গে যে আচরণ করা হয়েছে, তা এক কথায় নিষ্ঠুর। তারপরেও সে যেভাবে স্থিতি ধরে রেখেছে, দলকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছে, দলের ড্রেসিংরুমে সে সবার জন্য এক অনুপ্রেরণা। সবকিছুর জন্য সরফরাজের বড় কৃতিত্ব প্রাপ্য।’

বিশ্বকাপে ভারতকে কখনো হারাতে না পারার ধারা এবার ভাঙতে চেয়েছিল পাকিস্তান। সেটি তো হয়ইনি, উল্টো ম্যানচেস্টারে ৮৯ রানের বড় ব্যবধানে হারতে হয়েছে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের কাছে। এ ম্যাচের পরই সরফরাজকে বহুমুখী সমালোচনার শিকার হতে হয়েছে। তাঁর ফিটনেস থেকে শুরু করে মাঠের আচরণ সবকিছু নিয়েই হাসি-তামাশা হয়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। পাকিস্তানি অধিনায়ককে এর চেয়েও বাজে ঘটনার শিকার হতে হয়েছে কেনাকাটা করতে গিয়ে। এক সমর্থক সরফরাজকে ‘মোটা’ সম্ভাষণ করে সেটির ভিডিও করে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেন। এরপর আরও বেশি হাস্যরসের শিকার হতে হয়েছে তাঁকে।

সরফরাজ নিজেই পরে জানিয়েছিলেন, হোটেলের কক্ষে এ ভিডিও দেখে কান্নায় ভেঙে পড়েছিলেন তাঁর স্ত্রী। এ ঘটনা কীভাবে তাঁর নিজের ও পরিবারের ওপর প্রভাব ফেলেছে, সেটিও বলেছিলেন সরফরাজ, ‘ভিডিওটা যখন ভাইরাল হলো, আমার শরীরী ভাষাই পরিবর্তিত হয়ে গিয়েছিল। আমাকে অপমান করা হয়েছে সে কারণে নয়, আমার ছেলে আবদুল্লাহ ওই সময় আমার সঙ্গে ছিল। আর এ কারণেই আমার সবচেয়ে বেশি খারাপ লেগেছে।’

সরফরাজের অধিনায়কত্বে ৯ ম্যাচে ১১ পয়েন্ট নিয়ে পঞ্চম স্থানে থেকে এবারের বিশ্বকাপ শেষ করেছে ৯২ এর বিশ্বচ্যাম্পিয়ন পাকিস্তান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: