,


নাটোর (Natore)

নাটোরের সিংড়ায় অবৈধ ঔষধ ও যৌন উত্তেজক সিরাপ সংরক্ষণ ও বিক্রয়ের অভিযোগে র‌্যাবের ভ্রাম্যমান আদালতে দুই ব্যক্তির বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ড

নাটোর প্রতিনিধিঃ নাটোরের সিংড়ায় অভিযান চালিয়ে অবৈধ ঔষধ ও যৌন উত্তেজক সিরাপ সংরক্ষণ ও বিক্রয়ের অভিযোগে দুই ব্যক্তিকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ড দিয়েছে র‌্যাবের ভ্রাম্যমান আদালত।

এ সময় বিপুল পরিমান অবৈধ ঔষধ ও যৌন উত্তেজক সিরাপ সহ বিভিন্ন দ্রব্য জব্দ ও ধ্বংস করা হয়। আজ বুধবার সকাল সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত উপজেলার বালুয়াবাসুয়া এলাকায় যৌন উত্তেজক সিরাপ তৈরীর কারখানায় এই অভিযান চালানো হয়।

দন্ডপ্রাপ্তরা হলেন, উপজেলার বীনগ্রামের হেতু প্রামানিকের ছেলে মহসিন আলী (৪৫) ও একই গ্রামের রফিকুল হোসেনের ছেলে আলমগীর হোসেন (২৬)।

র‌্যাব-৫, সিপিসি-২, নাটোর ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার এএসপি মোঃ আজমল হোসেন জানান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুশান্ত কুমার মাহাতো এবং ড্রাগ সুপার মাখনুন তাবাসছুমের যৌথ নেতৃত্বে র‌্যাবের একটি দল আজ বুধবার সকাল থেকে উপজেলার বালুয়াবাসুয়া এলাকায় যৌন উত্তেজক সিরাপ তৈরীর কারখানায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে।

এ সময় ওই কারখানা থেকে ১৬ হাজার ২শ’৩০বোতল যৌন উত্তেজক সিরাপ, এক ড্রাম যৌন উত্তেজক সিরাপ, সাত হাজার পিস ভেজাল চকলেট জব্দ করা হয় এবং অবৈধ ঔষধ ও নিষিদ্ধ যৌন উত্তেজক সিরাপ উৎপাদন, সংরক্ষণ ও বিক্রয় করার অপরাধে মহশিন আলী ও আলমগীর হোসেনকে আটক করে ভ্রাম্যমান আদালতের সামনে হাজির করা হয়।

ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুশান্ত কুমার মাহাতো শুনানী শেষে মহসিন আলীকে এক বছর ছয় মাস এবং অপর আসামী আলমগীর হোসেনকে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদ- প্রদান করেন।

পরে তাদের জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়। দন্ডপ্রাপ্তদের দোকান থেকে ১৬ হাজার ২শ’৩০বোতল যৌন উত্তেজক সিরাপ, এক ড্রাম যৌন উত্তেজক সিরাপ, সাত হাজার পিস ভেজাল চকলেট জব্দ করা হয়।

পরে ভ্রাম্যমান আদালতের নির্দেশে উদ্ধারকৃত আলামত ধ্বংস করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: