,


নাটোরের বড়াইগ্রামে ছয় মাসের গর্ভবতী মায়ের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

নাটোরের বড়াইগ্রামে ছয় মাসের গর্ভবতী মায়ের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

নাটোর প্রতিনিধিঃ স্বামীর উপর অভিমান করে নাটোরের বড়াইগ্রামে মর্জিনা বেগম (৩৮) নামে ছয় মাসের এক অন্তস্বত্ত্বা গৃহবধূ আত্নহত্যা করেছে।

সোমবার সকাল ৬টার দিকে উপজেলার লক্ষীকোল বাজার এলাকায় প্রকৌশলী আজাদ সেখের বাড়ির দোতলায় উঠার সিঁড়ির গ্রিলের সাথে গলায় দড়ি পেঁচানো ঝুলন্ত অবস্থায় গৃহবধূ মার্জিয়া বেগমের মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

এই ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু দায়ের করা হয়েছে। মর্জিনা বেগম বাগডোব গ্রামের রইচ আলীর মেয়ে ও ভরতপুর গ্রামের পল্লী চিকিৎসক আলতাব হোসেনের দ্বিতীয় স্ত্রী। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করেছে। তবে এ ব্যপারে তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

বড়াইগ্রাম থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) তহসিন হোসেন জানান, প্রথম স্বামী উপজেলার ভরতপুর গ্রামের ইয়াকুব আলী মালয়েশিয়া থাকাকালীণ সময়ে দুই সন্তানের জননী মার্জিয়া বেগমের সাথে একই এলাকার পল্লী চিকিৎসক আলতাবের পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

বিষয়টি জানাজানি হয়ে গেলে গত ৩ বছর আগে আলতাব তার প্রথম স্ত্রীকে না জানিয়ে গোপনে মার্জিয়াকে বিয়ে করেন এবং বড়াইগ্রাম পৌরসভার লক্ষীকোল বাজার এলাকায় ভাড়া বাসায় বসবাস করতে থাকেন। এরই মধ্যে মর্জিনা গর্ভবতী হয়ে পড়লে স্বামী আলতাব হোসেন তাকে বিষয়টি গোপন রাখতে বলেন।

তবে গর্ভকালীন সময়ে মর্জিনার কোন খোঁজ খবর না নেওয়া, বাজার সদাই না করা, প্রয়োজনীয় চিকিৎসার ব্যবস্থা না করাসহ বেশ কিছু কারনে স্বামীর উপর অভিমান করে তিনি আত্নহত্যা করে থাকতে বলে ধারনা করছে নিহতের পরিবার ও পুলিশ।

এসআই তহসিন আরও জানান, এ ব্যাপারে তদন্ত চলছে। থানায় অপমৃত্যু মামলা রুজু করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: