,


দক্ষিণ আফ্রিকা পেল সান্ত্বনা, বাংলাদেশ পেল স্বস্তি

দক্ষিণ আফ্রিকা পেল সান্ত্বনা, বাংলাদেশ পেল স্বস্তি

ডেস্ক রিপোর্টারঃ এ ম্যাচ থেকে দক্ষিণ আফ্রিকার কিছু পাওয়ার ছিল না। কিন্তু পাওয়ার ছিল বাংলাদেশের। বাংলাদেশকে সে পাওনাটা যথাযথভাবেই বুঝিয়ে দিয়েছে প্রোটিয়ারা। শ্রীলঙ্কাকে ৯ উইকেটে হারিয়েছে। এরই মধ্যে বিদায় নিশ্চিত হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকার। আর শ্রীলঙ্কা ৬ পয়েন্টেই আটকে থাকল, বাংলাদেশও পেল স্বস্তি।

বিশ্বকাপের প্রতিটি ম্যাচের ফলের সঙ্গেই এখন জড়িয়ে যাচ্ছে একাধিক দলের ভাগ্য। আজকের ম্যাচটাই দেখুন না। মাঠে ছিল শ্রীলঙ্কা, কিন্তু ফলাফলের ওপর সজাগ নজর ছিল বাংলাদেশের সমর্থকদেরও। শ্রীলঙ্কা জিতে গেলেই যে মহামূল্যবান দুটি পয়েন্ট পেয়ে এগিয়ে যেত বাংলাদেশের চেয়ে! সহজ এক জয়ে সেটি হতে দেয়নি দক্ষিণ আফ্রিকা। বোলারদের পর ব্যাটসম্যানদের দাপটে ম্যাচ জিতে গেছে ১৬.৪ ওভার বাকি থাকতেই।

২০৩ রানের পুঁজি নিয়ে জিততে হলে লাসিথ মালিঙ্গাকে জ্বলে উঠতে হতো। এর আগে মালিঙ্গার কল্যাণেই ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ২৩২ রান করেও ২০ রানের জয় ছিনিয়ে এনেছিল শ্রীলঙ্কা। কিন্তু আজ আর পারেননি মালিঙ্গা, পারেনি শ্রীলঙ্কাও। কেবল কুইন্টন ডি ককের উইকেটটি নিয়েই খুশি থাকতে হয়েছে মালিঙ্গাকে। দক্ষিণ আফ্রিকার পুরো ইনিংসে উইকেট পড়ল ওই একটিই। গত বিশ্বকাপেও কোয়ার্টার ফাইনালে লঙ্কানদের ৯ উইকেটে হারিয়েছিল প্রোটিয়ারা।

এবারের বিশ্বকাপে বেশ কয়েকবারই হুড়মুড় করে ভেঙে পড়েছে দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটিং। দলীয় ৩১ রানের মাথায় ডি কক ফেরার পর সে রকম কিছু হলেও হতে পারত। সেটি হতে দেননি হাশিম আমলা ও অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসি। নিজেকে হারিয়ে খোঁজা আমলা অপরাজিত ছিলেন ৮০ রানে। চার রানের জন্য সেঞ্চুরি পাননি ডু প্লেসি, অপরাজিত ছিলেন ৯৬ রানে।

ব্যক্তিগত ৬৮ রানের মাথায় অবশ্য জীবন মেন্ডিসের বলে এলবিডব্লিউ হয়েছিলেন আমলা। জয় নিয়ে সংশয় নেই বলে অনেকটা আয়েশি ভঙ্গিতেই রিভিউ নিয়েছিলেন। বল ব্যাটে লাগেনি, বড় পর্দায় এটি দেখতে পেয়ে ড্রেসিংরুমের দিকে হাঁটাও ধরেছিলেন। কিন্তু বল ট্র্যাকিংয়ে দেখা যায়, বল লেগ স্টাম্পের একটু বাইরে পড়েছে। আমলার মুখের হাসিই বলে দিচ্ছিল, অপ্রত্যাশিতভাবে জীবন ফিরে পেয়ে কী রকম চমকে গিয়েছিলেন তিনি।

দক্ষিণ আফ্রিকার জয়ে সেমিফাইনালের লড়াই জমে উঠল আরও। বাংলাদেশ, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা তিন দলই ভালোভাবে নিশ্বাস ফেলছে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের ঘাড়ে। এশিয়ার এই তিন দলের মধ্যে পয়েন্ট তালিকায় এখনো এগিয়ে আছে বাংলাদেশই। কাল আফগানিস্তান যদি পাকিস্তানকে হারিয়ে দিতে পারে, তিন দলের এ লড়াই আরও ভালোভাবে জমে উঠবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: