,


‘তুমি সব সময় সবচেয়ে সুন্দর’
‘তুমি সব সময় সবচেয়ে সুন্দর’

‘তুমি সব সময় সবচেয়ে সুন্দর’

কয়েক দিন আগে বলিউড তারকা আনুশকা শর্মা উড়াল দেন ইংল্যান্ডে, সেখানে তাঁর স্বামী বিরাট কোহলির নেতৃত্বে বিশ্বকাপ ক্রিকেট খেলছে ভারত দল। দুজনই ইংল্যান্ডে আছেন, কিন্তু তাতে কী, তাঁদের একসঙ্গে থাকতে যে মানা। বিসিসিআইয়ের (বোর্ড অব কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন্ডিয়া) নিয়ম অনুযায়ী, বিশ্বকাপ ক্রিকেট চলাকালীন কোনো খেলোয়াড়ের সঙ্গে সর্বোচ্চ ১৫ দিন থাকতে পারবেন তাঁর স্ত্রী। আর তাই বিরাট ক্রিকেট খেলছেন, আর আনুশকা ব্র্যান্ডের ফটোশুট করছেন।

লন্ডনে আনুশকার ফটোশুটের দিনগুলোতে বিরাট তাই ছুটে এসেছিলেন আনুশকার কাছে। তারপর ঘড়ি ধরে সময় কাটিয়ে দুজন আবার নিজেদের কাজে মন দিয়েছেন। আনুশকা শর্মা এখন বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে বিজ্ঞাপনের শুটিংয়ে ব্যস্ত আছেন, আর কাজের ফাঁকে তিনি শহর ঘুরে দেখছেন। নিজের শহর মুম্বাইয়ে যে জীবন মেলে না, অচেনা–অজানা দূর পরবাসে এসে সেই জীবনের স্বাদ নিচ্ছেন।

একজন সাধারণ পর্যটকের মতোই ট্রেনে চেপে ব্রাসেলস ঘুরছেন আনুশকা শর্মা। তারকা হওয়ার পর ক্ষণিকের জন্য সাধারণ মানুষের এই জীবনে নিশ্চয়ই খুব ভালো আছেন তিনি। আলো ঝলমলে রঙিন উজ্জ্বল জীবনের মাঝে সাদা–কালো এই জীবনটুকুও যেন অমূল্য। আর তাই নিজের একটা হাসিমুখের সাদা–কালো ছবি পোস্ট করে ক্যাপশনে লিখেছেন, হলিউডের প্রখ্যাত অভিনেত্রী অড্রে হেপবার্নের উক্তি, ‘সুখী নারীরাই সবচেয়ে সুন্দর।’

আনুশকার কাছে যখন সুন্দরী হওয়ার প্রথম শর্ত সুখী হওয়া, তখন বিরাট কোহলির কাছে আবার সৌন্দর্যের সংজ্ঞা ভিন্ন। যে যাকে ভালোবাসে, সে তাঁর কাছে সবচেয়ে সুন্দর, সবার চেয়ে সুন্দর। বিরাট কোহলি আনুশকা শর্মাকে সবচেয়ে বেশি ভালোবাসেন। তাই বিরাটের কাছে আনুশকাই সবচেয়ে সুন্দরী। আর এ জন্যই আনুশকা শর্মাকে নিয়ে ইনস্টাগ্রামে বিরাট কোহলি লিখেছেন, ‘তুমি সব সময় সবচেয়ে সুন্দর।’

এর মানে হলো, সুন্দরী হওয়ার জন্য আনুশকার সুখী হওয়া বাধ্যতামূলক নয়। আনুশকা যদি মন খারাপ করে বসে থাকেন, তবুও তিনি বিরাটের চোখে সবচেয়ে সুন্দরী।

অন্যদিকে লন্ডনে গিয়ে আনুশকা শর্মা যোগ দিয়েছেন মৃৎশিল্প তৈরির ক্লাসে। নিয়মিত ক্লাসও করেছেন। তারপর আবার দৌড়েছেন ব্রাসেলসে, শুটিংয়ে। এর আগে ‘সুঁই ধাগা’ ছবির জন্য তিনি সেলাই মেশিন চালানো শিখেছিলেন। তবে এটা নাকি স্রেফ শখের বশেই শিখেছেন তিনি। সিনেমার চরিত্রের জন্য না। যদিও ‘জিরো’র পর নতুন কোনো ছবিতে তাঁর যুক্ত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি। তবে শোনা যাচ্ছে, এরপর নাকি আনুশকাকে বড় পর্দায় দেখা যাবে একজন পুলিশের চরিত্রে।

যাহোক, ব্রাসেলসের দিনগুলোতে শুটিং শেষে আনুশকা যাবেন বিরাটের কাছে। বিশ্বকাপের শেষ দিনগুলোতে বিরাট কোহলিকে সঙ্গ দেবেন আনুশকা শর্মা। আনুশকার খুব ইচ্ছা, এ বছর তিনি তাঁর স্বামীর হাতে দেখবেন বিশ্বকাপ। সবকিছু ঠিক থাকলে ইংল্যান্ডের মাঠে নতুন করে লেখা হতে পারে ভারতের ক্রিকেট আর বলিউডের প্রেমকাব্য। আবারও ইংল্যান্ডের বাতাস আনুশকার কাছে বয়ে নিয়ে যেতে পারে মাঠ থেকে ছুড়ে দেওয়া কোহলির উড়ন্ত চুমু।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: