,


টুস্কেনির আকাশের নিচে জমছে তাঁদের প্রেম

টুস্কেনির আকাশের নিচে জমছে তাঁদের প্রেম

বিনোদন ডেস্কঃ বিশ্ব ঘুরে ঘুরে বিশ্বের সব জায়গায় নিজেদের প্রেমের স্মৃতি তৈরি করতে উঠেপড়ে লেগেছেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া আর নিক জোনাস। তাঁদের নামের আগে আর পরিচয়সূচক শব্দ বসানোর দরকার নেই। নামই তাঁদের পরিচয় বহন করে। যা হোক, এই জুটি এবার খবর হয়ে এসেছেন ইতালির টুস্কেনির মনোরম পরিবেশে খোলা আকাশের নিচে নেচে।

যা হোক, ইনস্টাগ্রামে প্রিয়াঙ্কা চোপড়া খুবই সক্রিয়। তিনি কোথায় যাচ্ছেন, কী করছেন, কী অনুভব করছেন—সবকিছুই তিনি ইনস্টাগ্রামে পোস্ট দিয়েই জানিয়ে দেন। সাংবাদিকদের তাই খুব বেশি কষ্ট করতে হয় না। ঘরে বসে প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার ইনস্টাগ্রাম ফলো করলেই চলে। এখন দেখা যাচ্ছে উল্টোটা। কয়েক সপ্তাহ ধরে প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার সব খবর সরবরাহ করছেন নিক জোনাস। তবে কি নিকের ইনস্টাগ্রাম প্রিয়াঙ্কা চালাচ্ছেন?এমনও হতে পারে, একসঙ্গে থাকতে গিয়ে নিক জোনাসও হয়ে উঠেছেন খানিকটা প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। আর প্রিয়াঙ্কা চোপড়া পেয়েছেন নিক জোনাসের স্বভাব। তাই প্রিয়াঙ্কা চোপড়া ইনস্টাগ্রাম ফেলে পাস্তা রাঁধছেন, আর নিক জোনাস সেই ছবি তুলে আপলোড দিচ্ছেন। ইতালিতে গিয়ে তাঁরা ‘ডেট নাইট’ করবেন আর প্রিয়াঙ্কা পাস্তা রাঁধবে না, তাই কি হয়? তবে প্রিয়াঙ্কার রান্না করা পাস্তা খেয়ে নিক জোনাসের কেমন লেগেছে, তা জানা যায়নি।নিক জোনাসের দ্বিতীয় সর্বশেষ পোস্ট ছিল প্রিয়াঙ্কার পাস্তা রান্নার ভিডিও। আর সর্বশেষ পোস্টে চোখ আটকে যাবে যে কারও। সেখানে দেখা যাচ্ছে ইতালির আবহাওয়ায় প্রিয়াঙ্কা চোপড়া আর নিক জোনাসের প্রেম পেয়েছে এক অন্য মাত্রা। সেই ভিডিওতে দেখা যায়, ইতালির টুস্কেনির দূর দিগন্তে তখন সন্ধ্যে নামবে নামবে। কোথায় যেন বেজে চলেছে ডিন মার্টিনের ‘ভোলারে’। আর তার তালে তালে নেচে চলেছেন এই জুটি। সবশেষে নিক জোনাস প্রিয়াঙ্কার কপালে এঁকে দিলেন একটা ভালোবাসার চিহ্ন—চুমু। আর সেখানেই সমাপ্তি ঘটল এই স্বল্পদৈর্ঘ্য প্রেমকাব্যের।প্রিয়াঙ্কা চোপড়া নিক জোনাসের এই ভিডিওতে কমেন্টে রেখেছেন একটা হাসিমুখের ইমো। একজন সেখানে কমেন্ট করেছেন, ‘বাতাসে ভালোবাসা’। ক্রিস্টিয়ান হেবেল নামে এক মার্কিন বেহালাবাদক লিখেছেন, ‘ছুটির দিনের স্বপ্ন’। ভিডিওটি করেছেন অভিনেতা জোনাথান টাকার। তিনি লিখেছেন, ‘দেখলে তো কী সুন্দর ছোট্ট একটা সুখী সিনেমা বানিয়ে ফেললাম। ইতালিতে গিয়ে কত সব ইতালীয় ব্যাপার-স্যাপারই না করলাম। শুধু আমরা তিনজন।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: