,


টুঙ্গিপাড়ায় অবৈধ ড্রেজার দিয়ে বালি উত্তোলন করে রাস্তার কাজ করার অভিযোগ

টুঙ্গিপাড়ায় অবৈধ ড্রেজার দিয়ে বালি উত্তোলন করে রাস্তার কাজ করার অভিযোগ

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধিঃ গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় অবৈধ ড্রেজার দিয়ে খাল থেকে বালি উত্তোলন করে লোকাল গভর্নমেন্ট ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্ট (এলজিইডি),র রাস্তার কাজ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান সজীব এন্টারপ্রাইজ এন্ড সাইফুল আলম নান্নুর বিরুদ্ধে।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ঠিকাদার সাইফুল আলম নান্নু সম্পূর্ণ নিয়ম বহির্ভূত ভাবে চলমান রাস্তার কাজের পাশ দিয়ে প্রবাহমান খাল থেকে অবৈধ ড্রেজার দিয়ে প্রায় একমাস যাবত সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বালু উত্তোলন করেছে। এক ফুট বালিও সে কিনে রাস্তার কাজে লাগাচ্ছেনা। আর সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের ইঞ্জিনিয়ার তা দেখেও কোন পদক্ষেপ নেয়নি বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর। ঠিকাদার সাইফুল আলম নান্নু ডুমুরের ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান কবির আলম তালুকদারের ছোট ভাই। এছাড়া যে ভাবে খাল থেকে বালি উঠাচ্ছে তাতে করে রাস্তা ও আশে পাশের বাড়ি ঘর যে কোন মূহূর্তে বিলীন হওয়ার আশঙ্কায় ভূগছে এলাকাবাসী।
উপজেলা এলজিইডি অফিস সূত্রে জানা যায়, গোপালগঞ্জ জেলার গুরুত্বপূর্ণ পল্লী অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পে টুংগীপাড়া উপজেলার ডুমুরিয়া ইউনিয়নের করফা বাজার থেকে জামাই বাজার সড়ক পর্যন্ত প্রায় ৫ কিলোমিটার রাস্তা ও ২টি আর সি সি বক্স কালভার্ট নির্মাণের কাজ চলমান রয়েছে যার প্রাক্কলিত মূল্য ২ কোটি ১৬ লক্ষ ২৮ হাজার ৪৬৬ টাকা এবং চুক্তি মূল্য ২ কোটি ৩৭ লাখ ৬৭ হাজার ৬৭০ টাকা। আর ওই কাজ দেখার দায়িত্বে ছিলেন উপজেলা এলজিইডি অফিসের ইঞ্জিনিয়ার ইউনুস আলী।
এ ব্যাপারে ইঞ্জিনিয়ার ইউনুস আলীর কাছে ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলন করা দেখেছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি একটি ড্রেজার দেখেছি কিন্তু বালু উত্তোলন করেছে কিনা বলতে পারব না। ড্রেজার দেখেও আপনি কেন উর্ধতন কতৃপক্ষকে জানাননি এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি কোন উত্তর দেননি।
এ বিষয়ে উপজেলা এলজিইডি,র প্রধান প্রকৌশলী মনোয়ার উদ্দিন বলেন, আপনাদের মাধ্যমে বিষয়টি জানতে পারলাম। যদি সে খাল থেকে বালু উত্তোলন করে থাকে তাহলে তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: