,


গোপালগঞ্জ (Gopalgonj)

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় ১০ টাকা মূল্যের চাল বিতরণ কর্মসূচীতে পরিমানে কম দেয়ার অভিযোগ : ডিলারের বিরুদ্ধে মামলা

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধিঃ গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় খাদ্য বান্ধব কর্মসূচীর আওতায় দশ টাকা মূল্যের চাল সুবিধা ভোগীদের পরিমানে কম দেয়ার অভিযোগে খাদ্য বিভাগের তালিকাভুক্ত ডিলারের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। রোববার সকালে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মো: শাহাবুদ্দিন আকন্দ বাদী হয়ে খাদ্য বিভাগের তালিকা ভুক্ত ডিলার রুহুল আমিন হাওলাদারকে আসামী করে কোটালীপাড়া থানায় এ মামলা (নং- কোটালীপাড়া-৭, তারিখ-১০.০৯.১৮) দায়ের করেন।

শনিবার বিকেলে এ ঘটনার সাথে সম্পৃক্ততার অভিযোগ প্রমাণিত হয়ায় কোটালীপাড়া উপজেলা প্রশাসন তাৎক্ষনিক ভাবে উপজেলার সাদুল্যাপুর ইউনিয়নের জন্য নিয়োগকৃত খাদ্য বিভাগের তালিকাভুক্ত ডিলার মো: শাহবুদ্দিন আকন্দকে সাময়িক ভাবে বরখাস্ত করেছে। সে সাথে প্রশাসন ওই ডিলারের উপজেলার নৈয়ারবাড়ী বাজারে চালের গুদাম ঘর সিলগালা করে দেয়।

কোটালীপাড়া উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মো: শাহাবুদ্দিন আকন্দের সাথে কথা বলে জানা যায়, শনিবার উপজেলার নৈয়াবাড়ী বাজারে খাদ্য বান্ধব কর্মসূচীর আওতায় সাদুল্যাপুর ইউনিয়নের কার্ডধারীদের মধ্যে খাদ্য বিভাগের তালিকভুক্ত ডিলার রুহুল আমীন হাওলাদার চাল বিতরন করছিলেন। এ সময় ওই এলাকার জনপ্রতিনিধি ও স্থানীয় সুবিধাভোগীরা তাকে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে জানায় যে, ১০ টাকা দরে ৩০ কেজি করে চাল দেয়ার কথা থাকলেও ডিলার রুহুল আমিন হাওলাদার যে বস্তায় করে তাদের চাল দিচ্ছেন, তা খাদ্য বিভাগের সিলসহ বস্তার মধ্যে ইনট্যাক্ট করা থাকলেও প্রতি বস্তায় তাদেরকে ২৬-২৭ কেজি করে চাল দেয়া হচ্ছে।

একপর্যায় স্থানীয় লোকজন ওই ডিলারের কাছে চাল কম দেয়ার কারন জানতে চায় এর প্রতিবাদ করলে সেখানে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। এ খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবং তিনি (খাদ্য নিয়ন্ত্রক) দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে যান ও অভিযোগের সত্যতা পান। পরে ওই ডিলারকে সাময়িক ভাবে বরখাস্ত ও গুদাম ঘর সিল গালা করে দেয়া হয়। এছাড়া উপজেলা প্রশাসন ওইদিনের জন্য চাল বিতরন কার্যক্রম বন্ধ করে দেন।

কোটালীপাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার এস এম মাহফুজুর রহমান বলেন, অভিযোগ প্রমানিত হয়ার পর ওই ডিলারকে সাময়িক ভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। পাশাপাশি কোটালীপাড়া উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক বাদী হয়ে ওই ডিলারের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন।

এছাড়া কার্যক্রম যাতে বন্ধ হয়ে না যায় সেজন্য ওই ইউনিয়নের অপর এক ডিলারকে অতিরিক্ত দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: