,


গুজবে গণপিটুনি একেবারে বন্ধ হয়নি
গুজবে গণপিটুনি একেবারে বন্ধ হয়নি

গুজবে গণপিটুনি একেবারে বন্ধ হয়নি

ডেস্ক রিপোর্টারঃ মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের একটি চা–বাগানে ছেলেধরা সন্দেহে এক তরুণকে মারধর ও তাঁর বান্ধবীকে নাজেহাল করেছেন স্থানীয় লোকজন। রাজশাহীরা বাগমারায় দুই মানসিক প্রতিবন্ধী ব্যক্তিকে পুলিশে দিয়েছে স্থানীয় জনগণ। ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনি ও আটকের ঘটনা কমলেও একেবারে বন্ধ হয়নি।

এদিকে রাজধানীর উত্তর বাড্ডায় গণপিটুনিতে তাসলিমা বেগম হত্যার ঘটনায় আরও পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাঁরা হলেন সোহেল রানা, আসাদুল ইসলাম, তাজুল ইসলাম, বিল্লাল হোসেন ও মুরাদ হোসেন। এ নিয়ে এ ঘটনায় ১৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হলো। পুলিশ গতকাল আদালতে তুলে এই পাঁচজনের ১০ দিনের রিমান্ড চায়। আদালত তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। তবে এই ঘটনায় আরও এক নারী আটক হয়েছেন। ভিডিওর সঙ্গে মিললে তাঁকেও গ্রেপ্তার করা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

গত শনিবার রাজধানীর উত্তর-পূর্ব বাড্ডা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চার বছরের মেয়ের জন্য ভর্তির তথ্য সংগ্রহ করতে গিয়ে ছেলেধরা সন্দেহে স্থানীয়দের গণপিটুনিতে নিহত হন তাসলিমা বেগম।

‘ছেলেধরা’ সন্দেহে যুগল মারধর, নাজেহাল
কমলগঞ্জ থানা সূত্রে জানা যায়, গতকাল দুপুরে মৌলভীবাজারের জগন্নাথপুর এলাকার এক যুবক মোটরসাইকেলে তাঁর বান্ধবীকে নিয়ে পাত্রখোলা চা–বাগানে বেড়াতে যাচ্ছিলেন। পথে ভান্ডারিগাঁও এলাকায় এলাকাবাসী তাঁদের গতিরোধ করে ‘ছেলেধরা’ আখ্যা দিয়ে নাজেহাল করে। তর্কবিতর্কের একপর্যায়ে বান্ধবীকে রেখেই ওই যুবক মোটরসাইকেল নিয়ে পাত্রখোলা চা–বাগানের দিকে পালিয়ে যান। এ সময় স্থানীয় লোকজন মুঠোফোনে পাত্রখোলায় পরিচিতজনদের খবর দেন। খবর পেয়ে পাত্রখোলা চা–বাগানের শ্রমিকেরা বাগানে ফটক লাগিয়ে দেন। এ সময় মানুষের হাতে লাঠিসোঁটা ও দা দেখে ওই যুবক সেখান থেকে ধলই চা–বাগানের দিকে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। খবর পেয়ে ধলই চা–বাগানের শ্রমিকেরাও তাঁকে ধাওয়া দেন। এ অবস্থায় আবারও পাত্রখোলা চা–বাগানের দিকে ফিরে আসেন। এ সময় জনতা তাঁকে মারধর করে থানায় খবর দেয়। পরে পুলিশ তাঁদের উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

মারধর না করে পুলিশে সোপর্দ
রাজশাহীর বাগমারায় ছেলেধরা সন্দেহে দুই মানসিক প্রতিবন্ধী ব্যক্তিকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে স্থানীয় জনগণ। তবে তাঁদের মারধর করা হয়নি। পুলিশ জানায়, গত বুধবার রাতে উপজেলার দেউলা চৌরাস্তা মোড়ে মানসিক প্রতিবন্ধী এক যুবক ঘোরাফেরা করছিলেন। তাঁকে ছেলেধরা সন্দেহে স্থানীয় লোকজন থানায় খবর দিলে পুলিশ এসে তাঁকে উদ্ধার করে। প্রায় একই সময়ে উপজেলার দ্বীপনগর বাজারে আরেক মানসিক প্রতিবন্ধী ব্যক্তিকে লোকজন আটক করে। রাতেই পুলিশ তাঁকে থানায় নিয়ে আসে।

গুজব ছড়ানোর অভিযোগে আটক
সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছেলেধরার গুজব ছড়ানোর অভিযোগে রিয়াজুল মোর্শেদ তালুকদার (৩৫) নামে এক যুবককে আটক করেছে ঝালকাঠির পুলিশ। গত বুধবার সন্ধ্যায় ঝালকাঠির গাবখান সেতু এলাকা থেকে তাঁকে আটক করা হয়। তিনি জেলা যুবলীগের কর্মী। রিয়াজের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেছে পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: