,


কুড়িগ্রামের রৌমারীতে নিষিদ্ধ পিরানহা মাছ অবাধে বিক্রি

কুড়িগ্রামের রৌমারীতে নিষিদ্ধ পিরানহা মাছ অবাধে বিক্রি

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলার বিভিন্ন বাজারে অবাধে বিক্রি হচ্ছে নিষিদ্ধ পিরানহা মাছ। কিছু অসাধু মাছ ব্যবসায়ী রূপচাঁদা মাছ বলে তা ক্রেতাদের কাছে বিক্রি করছেন। সম্প্রতি রৌমারীর বিভিন্ন বাজারে খোঁজ নিয়ে এ তথ্য জানা গেছে।
এদিকে রৌমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) দীপঙ্কর রায় বাজারে পিরানহা মাছের বিক্রির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, বিষয়টি জানার পর ইতোমধ্যে বাজারে অভিযান পরিচালনা শুরু করেছেন।
সম্প্রতি রৌমারীর কর্তিমারী বাজারে গিয়ে দেখা যায়, সেখানে রূপচাঁদা মাছের নাম করে নিষিদ্ধ পিরানহা মাছ বিক্রি হচ্ছে। আব্দুল হালিম নামে এক মাছ বিক্রেতা জানান, জামালপুরের মাছ ব্যাপারী চাঁদ মিয়া নিয়মিত প্রায় দুইশ’ কেজি করে পিরানহা মাছ রৌমারীর যাদুরচর ইউনিয়নের শিবেরডাঙ্গি এলাকায় এনে বিক্রি করেন। খুচরা বিক্রেতারা সেসব মাছ কিনে নিয়ে উপজেলার বিভিন্ন বাজারে ভোক্তাদের কাছে বিক্রি করেন।
পিরানহা মাছ চাষ ও বিক্রি নিষিদ্ধ, বিষয়টি জানা নেই জানিয়ে এ মাছ বিক্রেতা বলেন, ‘আমি মূর্খ মানুষ, এসব মাছ যে নিষিদ্ধ তা জানি না। আপনি কইলেন নিষিদ্ধ, আর কোনও দিন বিক্রি করুম না।’
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, চাঁদ মিয়া নামে এক মাছ ব্যবসায়ী জামালপুরের শেরপুর এলাকার কালিবাড়ী নামক স্থান থেকে নিয়মিত পিরানহা মাছ নিয়ে এসে রৌমারীর বিভিন্ন বাজারের মাছ ব্যবসায়ীদের কাছে বিক্রি করেন। ওই বিক্রেতারা রূপচাঁদা মাছের নাম করে তা ভোক্কাদের কাছে বিক্রি করেন।
এছাড়াও উপজেলার যাদুরচর ইউনিয়ন পরিষদের একটি পুকুর লিজ নিয়ে মোস্তফা নামে এক মৎস্যচাষী সেখানে পিরানহা মাছ চাষ করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। তিনি দীর্ঘদিন ধরে উপজেলার বিভিন্ন পুকুরে এ মাছের চাষ করছেন বলে জানান রফিকুল নামে এক মাছ বিক্রেতা। ইউনিয়ন পরিষদ থেকে লিজ নেওয়া ওই পুকুরে পিরানহা মাছ চাষ করা হচ্ছে বলে নিশ্চিত করেছেন আরও বেশ কয়েকজন মাছ বিক্রেতা।
ইউনিয়ন পরিষদ থেকে লিজ নেওয়া পুকুরে হচ্ছে পিরানহা মাছের চাষতবে পিরানহা মাছ চাষের কথা স্বীকার করলেও বর্তমানে তা আর পুকুরে নেই বলে জানান মৎস্যচাষী মোস্তফা। তিনি বলেন, ‘আগে কিছু পিরানহা চাষ করলেও নিষিদ্ধ হওয়ায় তা এখন তুলে ফেলেছি।’
এ বিষয়ে জানতে যাদুরচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ সরবেশ আলীর মোবাইল ফোনে কল দিলে তার নম্বর বন্ধ পাওয়া গেছে।
উপজেলার বাজারে পিরানহা মাছ বিক্রির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রৌমারী উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা আমিনুর রহমান। তিনি বলেন, আমরা ইতোমধ্যে বাজারে অভিযান পরিচালনা শুরু করেছি। গত ২ জুলাই রৌমারী বাজার থেকে ২০ কেজি পিরানহা মাছ জব্দ করা হয়েছে বলেও জানান তিনি। তবে উপজেলায় এ মাছ চাষের বিষয়টি নাকচ করেন এই মৎস্য কর্মকর্তা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: