,


কার্তিকের নতুন বাড়ি এবং আরেকজন
কার্তিকের নতুন বাড়ি এবং আরেকজন

কার্তিকের নতুন বাড়ি এবং আরেকজন

ডেস্ক রিপোর্টারঃ দীর্ঘদিন সংগ্রাম করেছেন তিনি। এমন দিন ছিল, অডিশন দিয়ে ট্রেনে করে যখন ফিরতেন, ট্রেনের ভাড়া দেওয়ারও টাকা ছিল না তাঁর। কিন্তু ‘সনু কে টিটু কি সুইটি’ আর ‘লুকা ছুপি’ এই দুটি ছবিই বদলে দিল তাঁর জীবনের সব হিসাব-নিকাশ। সেসব ধূসর দিন এখন বদলে রঙিন হয়েছে। মুম্বাই শহরে তিনি একটা বাড়ি কিনেছেন। আর এইটা সেই বাড়ি, যেখানে রয়েছে কার্তিকের অনেক স্মৃতি। এখানেই ‘পেয়িং গেস্ট’ হয়ে বলিউডে প্রতিষ্ঠা পাওয়ার জন্য লড়েছেন কার্তিক।

বাড়িটি নিজের করে নিতে কার্তিক আরিয়ানের পকেট থেকে চলে গেছে ১ কোটি ৬০ লাখ রুপি। তবে যাঁর ছবি নিয়মিত ১০০ কোটির ক্লাবে যাচ্ছে, তাঁর জন্য নিশ্চয়ই এই অঙ্ক তেমন বড় নয়। মানুষটা এই বাড়ির ছোট্ট একটা ঘর ভাড়া করে সিনেমায় একটা চরিত্রের জন্য জুতার তলা ক্ষয় করে ঘুরতেন বলিউড পাড়ায়। সেই মানুষটা সেই বাড়ি কিনে ফেলার অর্থ, দিন বদলেছে। দিন যে বদলেছে কার্তিক আরিয়ানের, শুধু বাড়ি নয়, অনেক নিদর্শন রয়েছে তার।

গত বছর যুক্তরাষ্ট্রের কলাম্বিয়া থেকে পড়াশোনা শেষ করে এলেন সাইফ আলী খান আর অমৃতা সিংয়ের একমাত্র মেয়ে সারা আলী খান। বলিউডে অভিষেক ঘটার আগেই বোমা ফাটালেন তিনি। করণ জোহরের অনুষ্ঠানে বললেন, এই কার্তিক আরিয়ান নাকি তাঁর ক্রাশ। এক বছরও হয়নি। এখন সেই সারা আলী খান আর কার্তিক আরিয়ান মিলে ‘লাভ আজকাল’ ছবির সিক্যুয়েলের শুটিং সেটে চুটিয়ে প্রেম করছেন। কে জানে, সেই প্রেমের কতটা অভিনয় আর কতটা বাস্তব। অনেকে হিসাব কষে বলছেন, এই প্রেম নাকি পুরোটাই বাস্তব। অভিনয় নয় কিছুই।

অবশ্য এ জন্য ‘অনেক’কে দোষ দিয়ে লাভ নেই। গুঞ্জন তো আর এমনি এমনি রটে না। আর যা রটে তার কিছুটা তো বটে। এই যেমন গত পরশু কার্তিক আরিয়ান গাড়ি নিয়ে গেলেন সারা আলী খান, মা অমৃতা সিং আর ভাই ইব্রাহীম আলী খানকে এয়ারপোর্ট থেকে ‘রিসিভ’ করতে। প্রশ্ন আসাটা তো স্বাভাবিক, এত মানুষ থাকতে কার্তিক আরিয়ানই কেন গেলেন? আবার গেছেন একেবারে লুকিয়ে। কিন্তু পাপারাজ্জিদের চোখ ফাঁকি দেওয়া কি এতই সহজ?

ঠিকই কার্তিক আরিয়ান, সারা আলী খান, ইব্রাহীম আলী খান আর অমৃতা সিংকে ক্যামেরাবন্দী করেছেন তাঁরা। আর যখন কার্তিকের ছবি তোলা হচ্ছিল, তখন তিনি ঘাড় ঘুরিয়ে হাত দিয়ে নিজেকে আড়াল করেছেন। এসবের কী দরকার ছিল? এর আগেও তিনি একাধিকবার সারা আলী খানকে ‘রিসিভ’ করতে এয়ারপোর্টে গেছেন। আজ তিনি ইনস্টাগ্রামে একটা ছবি আপলোড করেছেন, যার ক্যাপশনে লিখেছেন, কাওকে যখন তিনি মিস করেন, তখন তাঁর মুখটা নাকি এ রকম দেখায়।

মাত্র কয়েক ঘণ্টায় সেই ছবিতে প্রায় ৬ লাখ লাইক জমা হয়েছে। আর ভক্তরাও দুইয়ে দুইয়ে চার মিলিয়ে সহজ অঙ্ক কষেছেন। এখন পর্যন্ত ২ হাজার ৮৪২ জন মন্তব্য করেছেন সেখানে। আর প্রায় সবার মন্তব্যে ‘সারা’ নামটা ছিল। মন্তব্য এসেছে, ‘লাভ আজকাল ২ ছবির শুটিংয়ের দিনগুলো নিশ্চয়ই খুব মনে পড়ছে?’, ‘সারা, সারা, সারা’ ইত্যাদি। সারা আলী খান আর কার্তিক আরিয়ান জুটির এই ছবি মুক্তি পাবে ২০২০ সালের ভালোবাসার দিনে, অর্থাৎ, ১৪ ফেব্রুয়ারি।

অন্যদিকে কার্তিক আরিয়ানের বর্তমান ব্যস্ততা যাচ্ছে ভূমি পেডনেকার এবং অনন্যা পান্ডের সঙ্গে, ‘পতি, পত্নী ঔর ও’ ছবির রিমেক নিয়ে। আর ছবির নায়িকা অনন্যা পান্ডে কার্তিক আরিয়ানের সঙ্গে কাজ করার বিষয়ে যারপরনাই উচ্ছ্বসিত। ইনস্টাগ্রামে তাঁর, কার্তিক আর ভূমি পেডনেকারের একটা ছবি পোস্ট করে এই অভিনয়শিল্পী জানিয়েছেন, কার্তিক আরিয়ান সহকর্মী হিসেবে দারুণ। শুটিংয়ে প্রতিদিন নাকি অনন্যাকে হাসানোর দায়িত্ব নিয়েছেন কার্তিক, আর সেই দায়িত্বও তিনি পালন করছেন অত্যন্ত সফলতার সঙ্গে।

এই না হলে বলিউডের নতুন ‘হার্টথ্রব’!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এই বিভাগের আরো

%d bloggers like this: